সোমবার ‚ ২২শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ ‚ ৬ই জুলাই, ২০২০ ইং ‚ বিকাল ৩:৫৮

Home মতামত দেশে করোনার চিকিৎসা মানুষ সঠিকভাবে পাচ্ছেনা

দেশে করোনার চিকিৎসা মানুষ সঠিকভাবে পাচ্ছেনা

মাসুক মিয়া মামুন ::


বাংলাদেশের চিকিৎসা ব্যবস্থা কখনই মানুষের জন্য সহায়ক ছিলনা। ফলে কোন দিনই মানুষকে উন্নত সেবা দিতে পারেনি। তাই মানুষ সন্তুষ্ট না। দেশের মানুষজন সবসময় চিন্তা করেন অসুস্থ হলে কিভাবে চিকিৎসা করাব? দেশে প্রতি বছর ২০-৩০% মানুষ চিকিৎসার কারণে সহায়সম্বলহীন হন। সরকার তার কাজটা সঠিকভাবে করছেনা বলে ক্লিনিকে রমরমা ব্যবসা হচ্ছে আর মানুষ রাস্তায় বসছে। সম্পুর্ন বিনামূল্যে চিকিৎসা করা এটা রাষ্ট্রের দায়িত্ব।

বর্তমানে করোনাভাইরাসের চিকিৎসা মানুষ সঠিকভাবে পাচ্ছেনা। চিকিৎসার জন্য অবকাঠামো নাই। তার জন্য রাস্তায় বাবার কোলে শিশুরা মারা যাচ্ছে। এম্বুলেন্সে ঘুরতে ঘুরতে মানুষ মারা যাচ্ছেন। ধনী মানুষ থেকে গরীব মানুষ সবারই একই অবস্থা। যেসকল ডাক্তার মানুষকে চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছেন তারা মারা যাচ্ছেন, চিকিৎসা পাচ্ছেন না। ডাক্তারদের মা-বাবা বা পরিবারের কেউ অসুস্থ্য হলে কোথায় চিকিৎসা করাবে তা নিয়ে ডাক্তাররা টেনশনে আছেন। বেসরকারী ক্লিনিকও সঠিকভাবে চিকিৎসা দিচ্ছে না, ডাক্তারদের সঠিক উপকরণ দেয়া হচ্ছে না চিকিৎসার জন্য। দেশের মধ্যে ধরনের অরাজকতা, নৈরাজ্য, চুরি ডাকাতি হচ্ছে চিকিৎসা খাতে। পত্র-পত্রিকায় প্রতিদিন কোন না কোন দূর্নীতির চিত্র প্রকাশ হচ্ছে। মানুষ চিকিৎসা পাচ্ছেনা বা করাতে পারছে না তার জন্য মানুষের মনে কষ্ট আছে কিন্তু সরকারের মনে কি কোন কষ্ট বা উপলব্ধি আছে? মানুষ চিকিৎসা না পেয়ে মারা যাচ্ছে এতে সরকারের কি কোন দ্বায়িত্ব নাই? করোনাভাইরাসের বিপদ মাথায় নিয়ে সরকার যখন বাজেট ঘোষণা করল তখন আমাদের ধারণা ছিল হয়তো এবার সরকার চিকিৎসা খাতকে ভালো করে গুরুত্ব দিবে কিন্তু বাস্তবে আমরা দেখলাম এটা বিগত দিনের মতো গতানুগতিক বাজেট। সরকারের কোন উপলব্ধি আছে বলে আমার মনে হয়না। আমরা বলছি কমপক্ষে মোট বাজেটের ২০% বরাদ্দ দিয়ে আপনাদের চুরিছামারি বন্ধ করে রাষ্ট্রীয় উদ্যোগে চিকিৎসা ব্যস্থা ভালো করে সাজানো দরকার। করুনা যেহেতু আপনাদের চেয়ে শক্তিশালী তাই শক্তিশালী ব্যবস্থা ছাড়া তা মোকাবিলা করা যাবেনা। তার জন্য বাজেট এবং ভালো মানের জনবল দরকার। ভালো জনবল না হলে বড় ধরনের সমস্যা হয়। আপনারা বললেন একজন ডাক্তার ৭ দিন কাজ করবেন আর ২১ দিন হোটেলে থাকবেন। ভালো কথা তার জন্য ৭ দিন ডিউটির বিপরীতে ২১ দিন বিলাসবহুল চার তারকা হোটেলে বিশ্রাম ও খাওয়া সারছেন- এতে ১ মাসের বিল এসেছে ২০ কোটি টাকা!

২০ কোটি টাকা। এটাকি কল্পনা করা যায়?

কিছু দেশের চিকিৎসা বরাদ্দ দেখলে বাংলাদেশের চিকিৎসা সম্পর্কে উপলব্ধি করা যায়। যেমন আমাদের পাশের কিছু দেশের মাথাপিছু ব্যয় ডলার হিসেবে মালদ্বীপ ১,৯৯৬ শ্রীলংকা ৩৯৬ ভূটান ২৮১ ভারত ২৬৭ আফগানিস্তান ১৬৭ নেপাল ১২৯ আর আমার সোনার বাংলা দেশ ৮৮.
কেন এ ধরনের দৃষ্টিভঙ্গি? এসকল দেশের তুলনায় বাংলাদেশ কি গরীব? ইউরোপের তুলনা দিলাম না। আপনারা পাগল হয়ে যাবেন।। ফ্রান্স মানুষ বিনামুল্যে চিকিৎসা করানোর পর বাসায় আসার আগে বেগ ভর্তিকরে সবজির মতো ফারমার্সীী থেকে ঔষধ বিনামূল্যে বাসায় নিয়ে আসেন।
আপনাদের যারা বিদেশ থাকেন তাদের কাছ থেকে জানতে চেষ্টা করবেন।

দেশে ভালো চিকিৎসা ব্যবস্থা নাই আজ সাবেক স্বরাষ্টমন্ত্রী অ্যাডভোকেট সাহারা খাতুন দেশের বাহিরে চিকিৎসা করাতে চান৷ আপনারাও করান। আমি বলি দেশে থাকবেন, খাবেন, সুযোগ সুবিধা নিবেন এবং মানুষের জন্য ও আপনাদের জন্য একটা রাষ্ট্র বানাবেন যেখানে সবাই নিরাপদে থাকবে। এটাইতো হওয়ার কথা। আপনি আজ অসুস্থ তাই সরকারের ও দেশের জনগণের কাজ হলো আপনাকে চিকিৎসা দিয়ে সুস্থ করা। তার জন্য ভালো চিকিৎসা ব্যবস্থা দরকার যাদিয়ে আপনাকে মানুষ সুস্থ করতে পারত। জানেন মানুষ আপনাদেরকে মুখ বন্ধ করে গালি দেয়। আমি আপনাদেরকে গালি দেইনা। একদিকে রাজনীতি করেছেন অন্যদিকে বয়স্ক। এ হিসেবে গালি দিতে পারিনা। জীবনের শেষবেলায় এটাইকি আপনার চাওয়া ছিল? বাঁচবেন বাংলাদেশে আর মরবেন গিয়ে বিদেশে এটা কি সুন্দর দেখায়।

আপনারা কথায় কথায় মুক্তিযুদ্ধের কথা বলেন।
এটা কি মুক্তিযুদ্ধের স্বপ্ন ছিল?
আপনারা বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করাবেন কিন্তু দেশের মানুষ চিকিৎসার জন্য কোথায় যাবে?

আপনারা কেন ভালো চিকিৎসকের ব্যস্থা তৈরি করলেননা? সমস্যা কোথায় ছিল? আফসোস হয় আপনাদের জন্। আজ নাছিম সাহেবকেও মানুষ গালি দেয়। উপলব্ধি করার কি কোন দরকার না?

আপনারা ৫ লাখ ৬৮ হাজার কোটি টাকার বাজেট ঘোষিত করেছেন। গত অর্থবছরের তুলনায় এবার ৪৫ হাজার কোটি টাকার বেশি বাজেট ঘোষিত হলেও সে অনুযায়ী কৃষি, স্বাস্থ্য, জন সুরক্ষা, শিক্ষা, গবেষণা, কর্মসংস্থান খাতে উল্লেখ যোগ্য বরাদ্দ বাড়ে নি। বরং জনপ্রশাসন (১৯ দশমিক ৯), সুদ পরিশোধ (১১ দশমিক ২), সামরিক (৬ দশমিক ১ ), আইন শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা (৫ দশমিক ০) এই চার খাতে মোট বাজেটের ৪২ দশমিক ২ শতাংশ টাকা ব্যয় হবে আর শিক্ষা ও প্রযুক্তি ( ১৫ দশমিক ১), কৃষি ( ৫ দশমিক ৩), স্বাস্থ্য ( ৫ দশমিক ১), সামাজিক নিরাপত্তা (৫ দশমিক ৬ ) এই চারটি প্রধান খাতে ব্যয় হবে ৩১ দশমিক ১ শতাংশ টাকা। এটা কি করোনা কালিন বাজেট হলো? খরচের খাতের মধ্যে বরাদ্দ দেখলে তা সহজে অনুমান করা যায়।

সরকারের সঠিক ব্যবস্থাপনার অভাবে ৫ টাকার উপকরণের দাম হয় ৫০০ টাকা, ৫০০ টাকার বালিশ ৬০০০ টাকা, ১০০০ টাকার পর্দা ১ লাখ টাকা, ২৫ লাখ টাকার মেশিন ২.৫ কোটি টাকা।
রাষ্ট্রায়ত্ত ২৫ পাটকল চালু রাখতে লাগে ১০০০ কোটি টাকা আর তা বন্ধ করার জন্য বরাদ্দ চায় ৬০০০ কোটি টাকা!

মাননীয় এমপি রতন গত দশ বছরে ১০ বছরে ২৫ টি বাড়ি ও হাজার কোটি টাকার মালিক। এমপি কাজী শহীদ ইসলাম পাপলু, এনামুল হক, নাঈমুর রহমান দুর্জয় তারা মাদক ব্যবসা, নারী ব্যবসা, অবৈধ আদম ব্যবসা এগুলোর সাথে জাড়িত। সরকার বানায় এমপি আর কুয়েতের বলে সে একটা চুর। নারী ব্যবসায় জড়িত থাকার অভিযোগে কুয়েতের আদালত এমপি পাপলু সাহেবকে ২১ দিনের জেল দিয়েছে। এগুলো আমার কথা নয় পত্র- পত্রিকায় প্রকাশিত হচ্ছে। ফলে এক বছরে কোটিপতি হয় ৮২৭৬ জন আর দরিদ্র হয় ১ কোটি ৬৪ লাখ। ২৫০০ টাকা গরীব মানুষকে সরকার থেকে বরাদ্দ দিলে সে টাকা মানুষ পায়না।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হিসাবে দেখা গেছে, বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলোতে এক কোটি টাকার বেশি আমানত রয়েছে এমন অ্যাকাউন্টের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮৩ হাজার ৮৩৯টি। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত দেশে কোটিপতি হিসাব ছিল ৭৫ হাজার ৫৬৩টি। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে কোটিপতি আমানতকারী বেড়েছে ৮ হাজার ২৭৬ জন আর দরিদ্র হয়েছেন ১ কোটি ৬৪ লাখ।তিন মাস আগে ২০১৯ সালের সেপ্টেম্বর শেষে দেশে কোটিপতির হিসাব ছিল ৭৯ হাজার ৮৭৭টি।

একজন ফেসবুকে লিখেছেন দোয়ারা বাজারে ২৫০০ টাকার বরাদ্দ ৫% মানুষও সঠিক ভাবে পাননি। তাহলে এত বড় বাজেট কার জন্য? সরকারের নিজের মানুজন বাজেট লুটপাট করে থাকে। এই বাজেট বা সরকার মানুষকে রক্ষা করতে পারছেনা। তাই আজ সময় আসছে বিকল্প চিন্তা করার। একটা ভালো বাজেট লাগবে, দক্ষ জনবল লাগবে এবং সঠিক ব্যবস্থা যা সরকারের হাতে নেই। শুধু টাকা, শক্তি আর অহমিকা দিয়ে সবকিছু সমাধান করা যাবেনা তা বার বার প্রমাীনিত হচ্ছে। করোনাভাইরাস চলাকালীন সময়ে যখন দেশে দেশে সরকারগুলি চরম অসহায় তখন ভারতের কেরালা, ভিয়েতনাম, চীন, কিউবা, তারা নিজরা নিজেদের রক্ষা করছে। কিউবা ইটালি, চীন, আফরিকার অনেক দেশ শহ ১৪/১৫ টি দেশে ডাক্তার দিয়ে সহযোগিতা করেছে। কিউবা বাংলাদেশের চেয়ে শক্তিশালী নয় কিন্তু একটি ব্যবস্থার মাধ্যমে তারা তা মোকাবিলা করতে পেরেছে। তাদের চিকিৎসা ব্যবস্থা বিনামূল্যে এবং সবার জন্য। তারা নিজের দেশে চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের দেশে দেশে চিকিৎসা সেবা দিচ্ছ।

তাহলে যে ব্যবসথার মাধ্যমে মানুষের জীবন যাপনের নিরাপত্তা দেয়া যায় সেই ব্যবস্থা ফলো করলে সমস্যা কোথায়? আমি মনে করি আমাদের সমাজের /দেশের মানুষজনকে সেভাবে চিন্তা করা দরকার। আজ আমেরিকায় যখন বর্ণবাদের বিরুদ্ধে আন্দোলন হচ্ছে তখন মানুষ শোষণহীন সমাজের জন্য মহামতি লেনিনের মূর্তি রাজধানীতে বসাচ্ছে। মানুষ ব্যবস্থা পরিবর্তন করতে চায়। তাই বাংলাদেশকে আমি মনে করি মানুষের জীবন মান উন্নয়নের জন্য সমতার রাষ্ট্র গঠন করতে হবে। এই পুঁজিবাদী ব্যবস্থা দিয়ে দূর্নীতিবাজদের বন্ধ করা যাচ্ছেনা, মুষ্টিমেয় কিছু মানুষ ধনী হচ্ছে আর অধিকাংশ মানুষ গরিব হচ্ছে। দলীয় লোকজন দ্বারা মানুষ শোষিত হচ্ছে। আমলা থেকে শুরু করে রাজনীতিবিদ সবাই দুনীুত সাথে জড়িয়ে আছেন। গরীব মানুষ বিচার পায়না, অসহায় হয়ে প্রধানমন্ত্রীর কাছে বিচার চায়। টাকা নাই বলে অসুস্থ মানুষ বলে আমি সুস্থ আছি, বিচার ব্যবস্থা নাই বলে মানুষ গরিব মানুষের উপর হাত উটায়, খবরের কাগজে আসে প্রধানমন্তী ছাড়া দলের সবাইকে কেনা যায়। প্রধানমন্ত্রী বারবার ঘোষণা করেন দূর্নীতিবাজরা রেহাই পাবেননা। এটা যদি বারবার প্রধানমন্ত্রীকে বলতে হয় তাহলে আইন, আদালত, পুলিশ, বিচারক বিভাগ এগুলোর কি দরকার? বাস্তবে প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণায় কি কাজ হয় বা হচ্ছে? এটাই হলো এব্যবস্থার সীমাবদ্ধতা। সবাই সবাইকে নিয়ে ব্যস্থ থাকবে আর জনগণের সম্পদ লুন্ঠন করবে। কিন্তু তা হতে পারেনা।

আমরা এমন একটি সমাজ চাই যে সমাজ বা রাষ্ট্রে শোষণ থাকবেনা। আমরা চাই খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা ও কাজ রাষ্ট্র সরাসরি জনগণের জন্য ব্যবস্থা করবে। সরকারি ব্যবস্থা বিকশিত হবে আর প্রাইভেট ব্যবস্থা বিলীন হবে। মানুষ ধুঁকে ধুঁকে মরবেনা বীনা চিকিৎসা মরবেনা মরতে হলে তাকে চিকিৎসা পেয়ে মরতে হবে। তাই আগামী দিন হবে অবস্থা পরিবর্তনের জন্য ব্যবস্থা পরিবর্তনের কাজ করার বা চিন্তা করার দিন।

লেখক : আন্দোলন সংগঠক ও সমন্বয়ক, বাসদ সমর্থক ফোরাম, ফ্রান্স

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ

বিএনপির মুখে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলা হাস্যকর : ওবায়দুল কাদের

অধিকার ডেস্ক:: বিএনপির মুখে দুর্নীতির বিরুদ্ধে কথা বলা হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল...

করোনায় দেশে ২৪ ঘণ্টায় ৪৪ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ৩২০১

অধিকার ডেস্ক:: দেশে করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মোট মারা গেলেন দুই...

রাবির ৬৮তম জন্মদিন আজ

রাবি প্রতিনিধি:: ইতিহাস, ঐতিহ্যের ৬৭ বছর পেরিয়ে সোমবার ৬৮ বছরে পদার্পণ করেছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) । প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশের স্বাধীনতা সংগ্রামসহ...

এবারের হজে কাবা স্পর্শ করা নিষিদ্ধ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ এড়াতে চলতি বছরে খুবই সীমিত পরিসরে হজের অনুমতি দিয়েছে সৌদি আরব। দেশটির মাত্র এক হাজার...
Shares