মঙ্গলবার, মার্চ ৯
শীর্ষ সংবাদ

`দেশের উন্নয়নের স্বার্থে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে কাউকে ভয় পাননি সাইফুর রহমান’

এখানে শেয়ার বোতাম

নিজস্ব প্রতিবেদক :: দেশের উন্নয়নের স্বার্থে কঠোর সিদ্ধান্ত নিতে কাউকে ভয় পাননি সাইফুর রহমান জানিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের অধ্যাপক ও খ্যাতিমান লেখক ড. আসিফ নজরুল বলেছেন, ‘সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনা মন্ত্রী এম. সাইফুর রহমান সিলেটে প্রচুর স্থাপনা গড়ে তুলেছিলেন। তবে শুধু সিলেটের উন্নয়নেই নয়, বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে তিনি ভূমিকা রেখেছিলেন। তাই তো তিনি শুধু সিলেটপ্রেমী নন, তিনি ছিলেন একজন বাংলাদেশপ্রেমিক।’ সাবেক অর্থমন্ত্রী এম সাইফুর রহমানের দশম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সিলেটে আয়োজিত আলোচনা সভায় মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আজ ৫ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার বিকেলে রিকাবীবাজারস্থ কবি নজরুল অডিটোরিয়ামে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে মরহুম এম. সাইফুর রহমান স্মৃতি সংসদ।

সিলেট সিটি করপোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আলোচক ছিলেন, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্ঠা এম এ হক, শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের সাবেক বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. কামাল আহমদ চৌধুরী, ড্যাব এর কেন্দ্রীয় সহসভাপতি ডা. শামীমুর রহমান, মদন মোহন কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ কর্ণেল এম আতাউর রহমান পীর।

মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে সিলেটের রাজনৈতিক সম্প্রীতির প্রশংসা করে ড. আসিফ নজরুল বলেন, বাংলাদেশের আর কোনো জায়াগায় রাজনৈতিক নেতাদের মধ্যে এমন সম্প্রীতি দেখা যায় না, যা সিলেটের রাজনীতিতে লক্ষ্যনীয়। এই সম্প্রীতি অন্যান্য অঞ্চলের রাজনীতিবীদদের জন্য অনুকরণীয় এবং অনুসরণীয়। তবে বর্তমানে এমন এক সংকটময় মূহুর্ত অতিবাহিত হচ্ছে যে এই সম্প্রীতি প্রকাশেও যেন আপনার ভয় পান। আমি আশা রাখি ভবিষ্যতেও কে কোন রাজনৈতিক দলের নেতা সেদিকে লক্ষ্য না রেখে, সিলেটের উন্নয়নে কার কতটুকু ভূমিকা রয়েছে সেদিকে লক্ষ্য রাখবেন সিলেটবাসী।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘আজ তাঁর এই মৃত্যুবার্ষিকীর দিনে তাঁর স্মরণে কোনো ব্যানার নেই। অথচ সাইফুর রহমানের ধুলির সমান হওয়ার ক্ষমতা নেই এমন মানুষেরও ব্যনার রয়েছে। কবি নজরুল অডিটোরিয়াম একসময় তাঁর নামেই ছিল, কিন্তু সরকার পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে এই নামেরও পরিবর্তন ঘটে। অথছ তিনি অর্থমন্ত্রী থাকাকালে প্রচুর স্থাপনা গড়ে দিয়েছিলেন আওয়মী লীগ নেতাদের নামে। হুমায়ূন রশীদ চত্বর করেছিলেন। গড়ে দিয়েছেন আব্দুস সামাদ আজাদ ও শাহ এম এস কিবরিয়ার নামে স্থাপনা। তাঁর এই কর্মের মাধ্যমে তিনি বুঝাতে পেরেছিলেন সিলেট একটি রাজনৈতিক সম্প্রীতির জায়গা।’

অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিতি ছিলেন বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্ঠা খন্দকার আব্দুল মুক্তাদির, বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ সাংগঠনিক সম্পাদক দিলদার হোসেন সেলিম, কলিম উদ্দিন মিলন, সিলেট মহানগর বিএনপির সভাপতি নাসিম হোসাইন, নেজামে ইসলামী পার্টির কেন্দ্রীয় সভাপতি মাওলানা আব্দুুর রকিব, ড্যাব সিলেট মহানগর সভাপতি ডা. নাজমুল ইসলাম, এফবিসিসিআই এর সাবেক পরিচালক হিজকিল গুলজার প্রমুখ।


এখানে শেয়ার বোতাম