শনিবার, নভেম্বর ২৮

দেশব্যাপী বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিবাদী মানববন্ধন ১০ আগস্ট

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির রাজনৈতিক পরিষদের প্রস্তাবে বলা হয় সরকারের অদ্ভুত আত্মতুষ্টি করোনা মহামারীকে প্রলম্বিত করছে এবং মহামারী মোকাবেলা দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অকার্যকরি প্রমাণীত হয়েছে।

আজ সকালে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির রাজনৈতিক পরিষদের ভার্চুয়াল মিটিং এ পার্টির নেতৃবৃন্দ বলেন, সরকারের অদ্ভুত আত্মতুষ্টি দেশে করোনা মহামারীকে প্রলম্বিত করছে। সরকারের ভুল নীতি- কৌশলের কারণে করোনা সংক্রমন সারাদেশে বিস্তার লাভ করছে। সরকারের উপর্যুপরি ব্যর্থতায় করোনার উৎপাদন-পুনরুৎপাদন কেবল বৃদ্ধি পেয়ে চলেছে। করোনা মহামারী মোকাবেলায় দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা অকার্যকরি প্রমাণিত হয়েছে। করোনার পরীক্ষা ও চিকিৎসা সম্পর্কে হাসপাতাল ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থার উপর গণঅনাস্থা তৈরী হয়েছে। এ কারণে লক্ষ লক্ষ মানুষ সংক্রমিত হবার পরেও হাসপাতালে যাচ্ছে না। সংক্রমন নিয়েই তারা সর্বত্র ঘুরে বেড়াচ্ছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তৎপরতা দেখে মনে হচ্ছে তারাও হাল ছেড়ে দিয়েছেন। এ কারণে করোনার পরীক্ষাও কমে আসছে, হাসপাতালে অসংখ্য করোনা বেড খালি পড়ে আছে। পরিস্থিতি সামাল দিতে না পেরে সরকারও সবকিছু খুলে ‘যে যেভাবে পার বাঁচ’ এই নীতি নিয়ে দেশবাসীকে চরম বিপদের মধ্যে ঠেলে দিয়েছে। সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, জনগণের প্রতি দায়িত্বশীল কোন সরকার এই পরিস্থিতি চলতে দিতে পারে না। তারা অবিলম্বে এই পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসতে বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ নিয়ে কার্যকরি উদ্যোগ গ্রহণের আহ্বান জানান।

অনলাইন সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, বন্যার পানি কমতে থাকার মধ্যে বন্যাদুর্গত-বানভাসি মানুষের বহু ধরনের দুর্গতি দেখা দিয়েছে। অধিকাংশ পরিবারসমূহের প্রয়োজনীয় খাবার নেই, হাতে নগদ অর্থ নেই, অসংখ্য পরিবারের বাসযোগ্য ঘরও নেই। নেতৃবৃন্দ বানভাসি মানুষের কাছে জরুরী ভিত্তিতে খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছানোর পাশাপাশি বন্যাউত্তর কৃষি পুনর্বাসনের সমন্বিত পদক্ষেপ নেবার জন্য সরকার ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের প্রতি দাবি জানান।

আগামী ১০ আগস্ট দেশব্যাপী বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির প্রতিবাদী মানববন্ধন

সভায় বন্যা-করোনা দুর্যোগে অসহায় মানুষদের খাদ্য ও চিকিৎসা নিশ্চিত, বন্যা দুর্গতদের পুনর্বাসন এবং সকল বিচারবহির্ভূত হত্যাকাণ্ড বন্ধের দাবিতে সারাদেশে ১০ আগস্ট ২০২০ বেলা ১১ থেকে ১২টা পর্যন্ত প্রতিবাদী মানববন্ধন অনুষ্ঠানের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এই কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হবে।

পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক এর সভাপতিত্বে এই ভার্চুয়াল মিটিং এ উপস্থিত ছিলেন রাজনৈতিক পরিষদের সদস্য বহ্নিশিখা জামালী, আকবর খান, আবু হাসান টিপু ও আনছার আলী দুলাল।


এখানে শেয়ার বোতাম