সোমবার, মার্চ ১
শীর্ষ সংবাদ

দুর্বৃত্তায়িত রাজনীতির পথে দেশ চলতে পারে না : ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি রুমন

এখানে শেয়ার বোতাম

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট-এর ৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলন আগামীকাল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি ইমরান হাবিব রুমন এর সাথে অধিকারের আলাপচারিতা নিম্নে তুলে ধরা হলো:

৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলনের উদ্দেশ্য প্রসঙ্গে রুমন বলেন, শিক্ষার বেসরকারিকরণ-বাণিজ্যিকীকরণ ও সাম্প্রদায়িকীকরণ বন্ধ, শিক্ষা গবেষণায় পর্যাপ্ত বরাদ্দ, সবার জন্য শিক্ষার গণতান্ত্রিক অধিকার প্রতিষ্ঠা, সন্ত্রাস-দখলদারিত্ব ও প্রশাসনিক স্বৈরতন্ত্রমুক্ত গণতান্ত্রিক শিক্ষাঙ্গন প্রতিষ্ঠার দাবিকে সামনে রেখে আগামী ২৫ সেপ্টেম্বর বুধবার ছাত্র সমাজের অগ্রবর্তী চিন্তার পথিকৃত সংগঠন সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের ৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় সভাপতি জানান, ২৫ সেপ্টেম্বর সকাল সাড়ে দশটায় ঢাকা বিশ্বিদ্যালয়ের অপরাজেয় বাংলায় সংগঠনের ৫ম সম্মেলন উদ্বোধন করবেন স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনের শহিদ ডা. সামছুল আলম মিলনের শ্রদ্ধেয় মা সেলিনা আক্তার। প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখবেন বাম গণতান্ত্রিক জোটের শীর্ষ নেতা বাসদের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা কমরেড খালেকুজ্জামান। বক্তব্য রাখবেন বাসদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, রাজেকুজ্জামান রতন।

সম্মেলনে বিদেশী অথিতি সম্পর্কে তিনি বলেন, বিভিন্ন দেশ থেকে আগত ভ্রাতৃপ্রতিম ছাত্র-যুব সংগঠনের নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখবেন, ভারতের সাবেক ছাত্র ও যুব নেতা বি আর মঞ্জুনাথ, নেপালের এএনএনআইএসইউ (অল নেপাল ন্যাশনাল ইন্ডিপেন্ডেন্ট স্টুডেন্টস ইউনিয়ন) (রেভুলিউশনারি) এর ভাইস চেয়ারম্যান তিলকরাজ ভান্ডারী, শ্রীলংকার এসএসইউ (সোস্যালিস্ট স্টুডেন্ট ইউনিয়ন) এর ইন্টারন্যাশনাল কমিটির মেম্বার শানিকা হাসিনি সিলভা, ভারতের আইসা (অল ইন্ডিয়া স্টুডেন্টস এসোসিয়েশন) এর পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য কমিটির সভাপতি নীলাশীষ বোস, সোস্যালিস্ট পার্টি অফ মালয়েশিয়ার স্টুডেন্ট এন্ড ইওথ উইং এর অর্গানাইজার ভেনুসা প্রিয়া, ফিলিপাইন এলএফএস (লীগ অফ ফিলিপিনো স্টুডেন্টস) এর ন্যাশনাল স্পোক পারসন ক্লারা লেনিনা তাগোয়া।

সম্মেলনে ছাত্র জমায়েত প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সারাদেশের প্রায় ৫০টি জেলা, ২৫টি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়, ২০/২৫টি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়, পাঁচ শতাধিক স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা, পলিটেকটিকসহ ডিপ্লোমা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১০ সহস্রাধিক ছাত্র ইতিমধ্যে ৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলনে যোগদানের জন্য নির্ধারিত ফি দিয়ে রেজিস্ট্রশন করেছে।

তিনি জানান, এই সম্মেলনের কাজ করতে গিয়ে বিভিন্ন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্ষমতাসিন ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ এবং প্রশাসনের দ্বারা বাধাগ্রস্ত হতে হয়েছে। সম্মেলনের প্রচারের সময় কুষ্টিয়া সরকারি কলেজে ছাত্রলীগ এবং অধ্যক্ষ মিলে পুলিশ ডেকে কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি লাবনী আক্তার, কলেজ শাখার সভাপতি তাসমিন নাহারসহ ৪ জনকে গ্রেফতার করানো হয়, নারায়ণগঞ্জ মহিলা কলেজের রেজিস্ট্রশন ফর্ম ছিড়ে ফেলা হয়, মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে রেজিস্ট্রেশন করতে আসা শিক্ষার্থীদের ভয়-ভীতি প্রদর্শন, বাধা প্রদান করে; এছাড়াও বিভিন্ন ক্যাম্পাসে পোস্টার ছিড়ে ফেলা হয়।

বর্তমান রাজনীতি সম্পর্কে তিনি বলেন, আজকে যে মূহুর্তে আমাদের সংগঠনের ৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে তখন দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি, শিক্ষা-সংস্কৃতিসহ সমাজের সর্বক্ষেত্রে চলছে এক চূড়ান্ত অবক্ষয়। উন্নয়নের বাজনার মাঝেই চলছে দেশে হাহাকার। মুষ্টিমেয় লোকের প্রাচুর্য আর জৌলুষের বাইরে কোথাও স্বস্তি নেই। নিরাপত্তাহীনতা ঘরে বাইরে সর্বত্র। স্কুল-কলেজগামী ছাত্রীরা ভয়মুক্ত নিঃশঙ্কচিত্তে যাতায়াত করতে পারে না। লাঞ্ছিত হয়ে অনেকেই আত্মহননের পথ বেছে নিচ্ছে। কিশোর তরুণদের মাঝ থেকে জ্ঞান সাধনা আর সুন্দর জীবনের স্বপ্নগুলো হারিয়ে যাচ্ছে। বখাটে আর কিশোর গ্যাং এর কলঙ্ক ছাপ পড়ছে তাদের গায়ে। মাদকাশক্তির করাল গ্রাসে ৮০ লক্ষ যুবক-যুবতী। শিক্ষা আর স্বাস্থ্যকে দামি পণ্যে পরিণত করা হয়েছে। প্রশ্নপত্র ফাঁস, কোচিং নির্ভরতা, পরীক্ষার বোঝা, প্রাতিষ্ঠানিক আয়োজন ও শিক্ষক স্বল্পতা গোটা স্কুল শিক্ষাকে বিপর্যস্ত করে চলেছে। পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে ক্রমান্বয়ে প্রাইভেট প্রতিষ্ঠানে পরিণত করার নানাবিধ প্রচেষ্টা চলছে। বাণিজ্যিক কোর্স, পিপিপি, হেকেপ ইত্যাদির মাধ্যমে বিশ্ববিদ্যালয়ে বাণিজ্যিক বিনিয়োগের ও মুনাফা লাভের ক্ষেত্রকে অবারিত করছে।

তিনি জানান, গবেষণা বরাদ্দ ও প্রাতিষ্ঠানিক আয়োজন খুবই নগন্য; আবাসন, পরিবহন সুবিধা সংকুচিত, ডাইনিং কেন্টিনে খাবার এর নিম্নমানের, অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ পাল্টাচ্ছে না। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় নামক প্রতিষ্ঠানটি কেবল মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ডের মত পরীক্ষা গ্রহণের কেন্দ্রে পরিণত হয়েছে আর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত ৭ কলেজের শিক্ষার্থীরা চরম বিপাকে রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বিশেষ করে উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহ শাসক দলের ছাত্র সংগঠনের দখলে। আবাসন সংকটকে পুঁজি করে শিক্ষার্থীদের দলীয় কর্মসূচিতে অংশগ্রহণে বাধ্য করা হচ্ছে। টেন্ডার দখল, তোলাবাজি, আধিপত্য কায়েম ও বিস্তারের দ্বন্দ্বে এরা প্রায়ই নিজেদের মধ্যেই সংঘর্ষে লিপ্ত হচ্ছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, জাহাঙ্গিরনগর বিশ্ববিদ্যালয়, গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অবৈধ ভর্তি, অর্থ লুটপাট, ছাত্রী নির্যাতনের ঘটনার মাধ্যমে পুরো শিক্ষাব্যবস্থাকে কালিমালিপ্ত করা হচ্ছে; ঠিক সেই সময়ে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ৫ম কেন্দ্রীয় সম্মেলন করতে যাচ্ছে।

তিনি আহবান জানান, কোটি কোটি মানুষের জীবন বাজি রাখা সংগ্রামে লক্ষ লক্ষ প্রাণের আত্মবলিদানে সশস্ত্র মহান মুক্তিযুদ্ধে অর্জিত বাংলাদেশের এই অবস্থা ছাত্র-যুব সমাজসহ দেশবাসী মেনে নিবে না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিনাশী, অঙ্গীকার লঙ্ঘনকারী দুর্বৃত্তায়িত রাজনীতির পথে দেশ চলতে পারে না, লুণ্ঠনের অর্থনীতি, ভোগবাদী অপসংস্কৃতি, সাম্প্রদায়িকতার বিস্তার চলতে পারে না। তাই এ অবস্থা বদলের দৃঢ় প্রত্যয় ও সংকল্প নিয়েই সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট ২৫ সেপ্টেম্বর ৫ম সম্মেলনের মধ্য দিয়ে নব জাগরণের ডাক দিয়ে বিশাল ছাত্র জমায়েতের মাধ্যমে উপস্থিত হতে যাচ্ছে।


এখানে শেয়ার বোতাম