শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

‘তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে তামাকপন্যের দাম বৃদ্ধি করতে হবে’

এখানে শেয়ার বোতাম

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:: তরুন প্রজন্মকে তামাকের নেশা থেকে দূরে রাখতে সিগারেট ও তামাকদ্রব্যকে শিশু ও যুবদের সাধ্যের বাইরে নিয়ে যেতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন চট্টগ্রাম ১৪ আসনের সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

করোনাকালীন মহামারীর সময়ে তামাকজাত দ্রব্য নিয়ন্ত্রনে তামাক বিরোধী সংঠনগুলোর সাথে একাত্মতা জানিয়ে সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, তামাকের দাম বৃদ্ধি পেলে তরুণরা তামাকের ব্যবহার শুরু করতে নিরুৎসাহিত হয় এবং জীবনব্যাপী নেশা থেকে পরিত্রাণ পায়। তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জনে তাই তামাকপন্যের দাম বৃদ্ধি করতে হবে।

আজ শনিবার (২০ জুন, ২০২০) স্থায়ীত্বশীল উন্নয়নের জন্য সংগঠন ইপসার সাথে এক মতবিনিময়ে এসব কথা বলেন তিনি।

সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী, বাংলাদেশে তামাকপণ্য অত্যন্ত সস্তা। ফলে, শিশু এবং যুবকরাও খুব সহজেই তামাকপন্য ক্রয় করছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুত ২০৪০ সালের মধ্যে তামাকমুক্ত বাংলাদেশ অর্জন করতে এবং তরুণ সমাজকে তামাকমুক্ত রাখার জন্য সকল তামাকপণ্যের কর ও দাম বাড়িয়ে তরুণদের ক্রয় ক্ষমতার বাইরে নিয়ে যেতে হবে।

করোনাকালীন এই সময় হলো তামাক বর্জন করার উপযুক্ত সময় উল্লেখ করে সংসদ সদস্য মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, এটা সুপ্রতিষ্ঠিত যে ধূমপান ত্যাগ করলে ফুসফুসের কার্যকারিতা তুলনামূলকভাবে দ্রুত উন্নতি করে, যা শ্বাসকষ্ট জনিত অসুবিধাগুলোর সংবেদনশীলতা হ্রাস করে, রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় এবং আরও অনেক উপকার করে।

বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দিনদিন বাড়ছে। এখনই উপযুক্ত সময় সরকার এবং সংশ্লিষ্টনীতি নির্ধারকদের তামাক নিয়ন্ত্রণে শক্তিশালী পদক্ষেপ গ্রহণ করার, বিশেষত জনস্বাস্থ্য সুরক্ষার তামাকজাত দ্রব্য বিক্রয় সীমিত করা, তামাকের কর বৃদ্ধি করা এবং তামাক নিবৃত্তকরণ পরিসেবা সমূহের উন্নয়ন বৃদ্ধি করা।


এখানে শেয়ার বোতাম