মঙ্গলবার, মে ১১
শীর্ষ সংবাদ

ঝুঁকি থাকলেও দায়িত্ব পালন করতে চায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনী

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: মানুষকে ঘরে রেখে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত ও জনসচেতনতা বাড়াতে মাঠে নিরলস কাজ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ও সেনা সদস্যরা। দায়িত্ব পালনের সময় সাধারণ মানুষের কাছাকাছি যাওয়ায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরাও রয়েছেন করোনাভাইরাস সংক্রমণের ঝুঁকিতে। পর্যাপ্ত সুরক্ষা সরঞ্জাম না থাকলেও দায়িত্বে অবহেলা করতে রাজি নন তারা।

করোনা ভাইরাস বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়লে সাধারণ মানুষকে ঘরে থেকেই সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের ওপরে জোর দেয়া হচ্ছে বিশ্বব্যাপী। দেশে করোনা রোগী শনাক্তের পর হোম কোয়ারেন্টিন নিশ্চিত করতে মাঠে নামে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর দুই লাখেরও বেশী সদস্য। পাশাপাশি কাজ করছে সাড়ে সাত হাজার সেনা সদস্য।

সাধারনত জনসমাগম এড়িয়ে চলাসহ মানুষকে গ্লাভস ও মাস্ক ব্যবহারে সচেতন করতে তাদের কাছাকাছি থাকতে হচ্ছে মাঠে কাজ করা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে। এক্ষেত্রে তারাই বা কতটা সচেতন? সাধারণ মানুষের কাছাকাছি গেলেও পুলিশ সদস্যরের অনেকের হাতেই নেই গ্লাভস। এতে করে তারাও থাকছেন সংক্রমণের ঝুঁকিতে। পুলিশ সদস্যরা বলছেন, এখনো পর্যাপ্ত পরিমাণে সুরক্ষা সরঞ্জাম নেই তাদের কাছেও।

কিছুকিছু ক্ষেত্রে পুলিশ সদস্যরাও অসচেতনার বসে নিজেরাও সামাজিক দূরত্ব মানছেন না। তবে, উল্টো চিত্রও আছে। অনেকেই সুরক্ষা সরঞ্জাম নিয়েই মাঠে কাজ করছে। সেনা সদস্যদের ক্ষেত্রেও একই ঝুঁকি থেকেই যাচ্ছে। তারা বলছেন, সংক্রমণের ঝুঁকি থাকলেও মানুষের জীবন রক্ষার স্বার্থে সরকারি দায়িত্ব পালন করতে চান তারা।

দেশের বিভিন্ন স্থানে জীবনের ঝুঁকি নিয়েও করোনা রোগীদের নিজ উদ্যোগে দাফন করাসহ খাবারও সরবরাহ করছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। পর্যাপ্ত সুরক্ষা সরঞ্জাম ও নিজ পরিবারের আপত্তি সত্ত্বেও নিজেদের সর্বোচ্চ নিরাপদ রেখেই দেশের মানুষের সুরক্ষায় কাজ করার আহ্বান পুলিশ সদর দপ্তরের।

জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মাঠে কাজ করা এই সদস্যদের আহ্বান, তারা যেমন ঝুঁকি নিয়ে মানুষের সুরক্ষায় কাজ করছে ঠিক তেমনি সাধারণ মানুষও যেন সম্মান দেখিয়ে ঘরে থাকে।


এখানে শেয়ার বোতাম