শনিবার, মে ৮
শীর্ষ সংবাদ

জিয়াউর রহমান বৈধ রাষ্ট্রপতি ছিলেন : খন্দকার মোশাররফ

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান বৈধ রাষ্ট্রপতি ছিলেন। নিজেদের দোষ ঢাকতে ক্ষমতাসীনেরা অন্যের ওপর দোষ চাপাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেন বিএনপির এই নেতা।

সোমবার বিকেলে রাজধানীর নয়াপল্টনে জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর শোভাযাত্রা অনুষ্ঠানের আগে সমাবেশে খন্দকার মোশাররফ হোসেন এ কথা বলেন।

রোববার সংসদ অধিবেশনে বিরোধীদলীয় নেতা এইচ এম এরশাদের মৃত্যুতে সংসদে আনা শোকপ্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আদালতের রায় অনুযায়ী সাবেক সেনাশাসক জিয়াউর রহমান এবং এইচ এম এরশাদের শাসনামল অবৈধ। এ দুজনের কাউকে রাষ্ট্রপতি হিসেবে উল্লেখ করা বৈধ নয়।’

প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে খন্দকার মোশাররফ বলেন, ‘১৯৭৮ সালের নির্বাচনের মাধ্যমে জিয়াউর রহমান রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। জিয়াউর রহমান বৈধ রাষ্ট্রপতি ছিলেন। যারা জিয়াউর রহমান বৈধ বলছেন না, তাঁরা আগের রাতে ভোট ডাকাতি করে সরকারে রয়েছে।’

বর্তমান সরকারকে অবৈধ আখ্যা দিয়ে খন্দকার মোশাররফ বলেন, যেহেতু তারা অবৈধ, সে জন্য এখন অন্যদের ওপর দোষ চাপিয়ে তা ধামাচাপা দিতে চায়।

আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘অর্থনীতি ধ্বংসপ্রাপ্ত, ব্যাংকগুলো লুট হয়ে গেছে।’ এই অবস্থা থেকে মুক্তি পেতে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলনে সবাইকে এক হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

জিয়াউর রহমান আওয়ামী লীগকে নতুন জন্ম দিয়েছিলেন দাবি করে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘জিয়াউর রহমান যদি অবৈধ হন, তাহলে আওয়ামী লীগও অবৈধ, প্রধানমন্ত্রীও অবৈধ।’

মহিলা দলের সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে সমাবেশের পর নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয় থেকে শোভাযাত্রা বের করা হয়। কাকরাইল মোড় ঘুরে কার্যালয়ের সামনে ফিরে তা শেষ হয়।


এখানে শেয়ার বোতাম