মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৪

জামালপুরে গণধর্ষণে ছাগলের মৃত্যু, জনপ্রতিনিধির মধ্যস্থতায় মীমাংসা

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 137
    Shares

আবু সায়েম, জামালপুর প্রতিনিধি:: জামালপুরের বকশীগঞ্জে ধর্ষকদের হাত থেকে রক্ষা পায়নি গীর্জার ছাগল। ৩ ধর্ষকের বিকৃত যৌন লালসার শিকার হয়ে শেষ পর্যন্ত মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ে নিস্পাপ প্রাণীটি। ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধির মধ্যস্থতায় মীমাংসা। ঘটনাটি ঘটেছে বকশিগঞ্জ উপজেলার লাউচাপড়ার দিঘলকোনায় এলাকায়।

৬ অক্টোবর মঙ্গলবার এ ঘটনায় স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, জামালপুর জেলার বকশিগঞ্জ উপজেলার লাউচাপড়া এলাকার দিঘলকোনায় অবস্থিত খ্রীষ্টান মিশনারীর (গীর্জা) একটি ছাগল প্রতিদিনের মতো ঘাষ খেতে পাহাড়ে যায় । এ সময় লাউচাপড়া এলাকার আব্দুস সামাদের ছেলে ইমরান (১৮) নওশেদ আলীর ছেলে উকন (১৬) ও আসমত আলীর ছেলে ইয়াসিন (১২) সবাই মিলে ছাগলটিকে ধরে বলৎকার করে । এ সময় ছাগলটি যেন কোন ধরনের শব্দ করতে না পারে সেজন্য ছাগলের চোখ, নাক ও মুখ গামছা দিয়ে বেঁধ ফেলে। এতে এক পর্যায়ে ছাগলটি শ্বাসরুদ্ধ হয়ে মারা যায়।

পরে এ ঘটনায় স্থানীয়দের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভ ও চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে ধানুয়া কামালপুরের ইউপি সদস্য নুর জাহান বেগম অঞ্জলী, গীর্জার পুরোহিত শেখর চার্লস পেরেরাসহ ধর্ষকরা পরিবার মিলে ছাগলের দাম ১০ হাজার টাকা নির্ধারন করে জরিমানা করা হয়েছে। পরে ছাগলটি পুতে ফেলা হয়।

ছাগল বলৎকারের বিষয়টি নিশ্চিত করে ইউপি সদস্য নুর জাহান বেগম অঞ্জলী সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাটি অত্যন্ত লজ্জা জনক। এলাকার ছেলেরা ভুল করে করে ফেলেছে, জনপ্রতিনিধি হিসাবে তিনি এটি মিমাংসা করেছেন।

তবে গীর্জার পুরোহিত শেখর চার্লস পেরেরা সাংবাদিকদের এরিয়ে চলেন এবং তাদের সাথে কোন মন্তব্য করেননি।

জামালপুরের বকশীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শফিকুল ইসলাম সম্রাট গনমাধ্যমকে বলেন, বিষয়টি নিয়ে কেউ কোন অভিযোগ করেনি। অভিযোগ দিলে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 137
    Shares