শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

জনবান্ধব পুলিশের জন্য ‘পুলিশ কমিশন’ গঠনের দাবি জেএসডির

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 5
    Shares

অধিকার ডেস্ক:: গণবিরোধী নির্মম পুলিশি ব্যবস্থার বিপরীতে জনগণের ‘জীবন’ ‘অধিকার’ এবং ‘মর্যাদা’ রক্ষায় সাংবিধানিক দায়িত্ব পালনের লক্ষ্যে বিদ্যমান পুলিশি ব্যবস্থার আমূল সংস্কারের দাবি জানিয়েছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল-জেএসডি।

শনিবার (১২ সেপ্টেম্বর) দলের সভাপতি আ স ম আবদুর রব ও সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট ছানোয়ার হোসেন তালুকদার এক বিবৃতিতে বলেন, বিচারবহির্ভূত হত্যা, পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু, মানবাধিকার লঙ্ঘনসহ বিভিন্ন বেআইনি কর্মকাণ্ডে পুলিশের সম্পৃক্ততা প্রমাণ হয়। বিদ্যমান পুলিশি ব্যবস্থা দিয়ে আইনের শাসন ও জনগণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যায় না। একজন নাগরিককে গ্রেফতার করে পুলিশি হেফাজতে হত্যা দুইশ বছরের ব্রিটিশ আমলেও সংঘটিত হওয়ার প্রমাণ পাওয়া যায়নি। অথচ মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে অর্জিত স্বাধীন রাষ্ট্রে প্রতিনিয়ত নাগরিককে খুন করা রাষ্ট্রীয় কর্তব্যে রূপান্তরিত হয়েছে যা মুক্তিযুদ্ধকে অসম্মানের শামিল।

নেতারা বলেন, পুলিশকে স্বাধীন দেশের উপযোগী গণমুখী, মানবিক, দক্ষ, উচ্চতম মূল্যবোধ সম্পন্ন এবং শাসনতান্ত্রিক দায়বদ্ধতার আওতায় আনতে পুলিশি ব্যবস্থার সংস্কার জরুরি। দীর্ঘদিন ধরে পুলিশ বিচারবহির্ভূত হত্যা, ক্রসফায়ারের হুমকি দিয়ে অর্থ আদায়, গায়েবি মামলা দিয়ে গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে স্তব্ধ করা, নিরপরাধ মানুষকে অপরাধী সাজানোসহ ব্যাপক বেআইনি কর্মকাণ্ড সংঘটনের মাধ্যমে জনজীবনকে সঙ্কটে ফেলে দিয়েছে এবং পুলিশ যে জনগণের বন্ধু এ বুলি এখন তামাশায় পরিণত হয়েছে। ক্ষমতাসীন সরকারের বেআইনি আদেশ-নির্দেশ পালন করতে করতে পুলিশ তার মৌলিক কর্তব্য ভুলে গেছে যা কোনোভাবেই মেনে নেয়া যায় না। পুলিশের কর্মকাণ্ড নিয়ে জনমনে যে ক্ষোভের জন্ম হচ্ছে তারও নিরসন করা খুব জরুরি।

বিবৃতিতে নেতারা বলেন, জনগণের ‘জীবন’ ‘অধিকার’ এবং ‘মর্যাদা’ সুরক্ষায় পুলিশি ব্যবস্থার সংস্কার প্রয়োজন। স্বাধীন দেশের উপযোগী পুলিশ বাহিনী গঠনের লক্ষ্যে বিদ্যমান পুলিশি ব্যবস্থার আমূল সংস্কারের জন্য ‘পুলিশ কমিশন’ গঠনের দাবি জানায় জেএসডি।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 5
    Shares