শুক্রবার, মে ১৪
শীর্ষ সংবাদ

জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করছে: রিজভী

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে হরতাল পালন করছে। চারদিকে গাড়িঘোড়া চলছে না। দোকানপাট বন্ধ আছে। জনগণ আমাদের ডাকা হরতালে পূর্ণ সমর্থন দিয়েছে। এটাই আমাদের পাওয়া।

রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে হরতাল চলাকালে অবস্থান নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে তিনি এসব কথা বলেন।

রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, মানুষের কাছে সরকার হরতাল সম্পর্কে নানাভাবে বিকৃত তথ্য দিয়েছে। এখন হরতাল দিয়েছি এ জন্য যে- মানুষের কাছে এটাই প্রমাণ করা যে হরতাল কোনো বিধ্বংসী অথবা জঙ্গি কর্মসূচি নয়। যুগে যুগে গণতান্ত্রিকামী-স্বাধীনতাকামী মানুষেরাই হরতাল দিয়েছে। মহাত্মা গান্ধী, নেলসন ম্যান্ডেলা হরতাল দিয়েছেন। হরতাল হচ্ছে স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের একটা ভাষা। সেই ভাষাটাই আমরা প্রয়োগ করছি। কিন্তু নানা সময়ে সরকার সাবোট্যাজ করে এটাকে নানা ধরনের অপব্যাখ্যা দিয়েছে। কিন্তু আমরা মনে করি, এ উপলব্ধিটা মানুষের মধ্যে এসেছে। তখন দেইনি বলে এখন দেওয়া যাবে না এমনতো কোনো কথা নেই। অন্যায়, অবিচার, জনগণের সঙ্গে প্রতারণার পরিমাণ এত বেশি হয়ে গেছে যে এখন আমাদের তীব্র থেকে তীব্রতর আন্দোলন কর্মসূচি দিতে হবে। সেই আন্দোলনেরই একটা ধাপ হচ্ছে হরতাল।

রিজভী বলে, ইভিএম ভোট ডাকাতির একটা যন্ত্র। ইভিএম, ভোট ডাকাতিসহ সবকিছু মিলিয়ে যেভাবে নির্বাচন ছিনতাই করেছে, তার বিরুদ্ধেই এই হরতাল। সরকার জোর করে ক্ষমতায় আছে। তারা যদি মনে করে এভাবেই দেশ চলবে, সেটা কোনো দিন চলতে পারে না। ন্যায়ের জয় হবে, ন্যায় বিচার নিশ্চিত হবে। সরকারের চলে যাওয়াটা কেমন হবে সেটাই দেখার বিষয়।

এ সময় রিজভীর পাশে ছিলেন বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব হাবিব উন-নবী খান সোহেল, নির্বাহী কমিটির সদস্য অ্যাডভোকেট আবেদ রাজা, নিপুন রায় চৌধুরী, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদসহ ১৫/২০ জন নেতাকর্মী। তারা হরতালের পক্ষে নানা রকম স্লোগান দিচ্ছিলেন।


এখানে শেয়ার বোতাম