শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

চাঁদা দাবি করায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় আ’লীগ নেতাকে গণধোলাই

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: স্থানীয় একটি বাজারে কয়েকজনের কাছে চাঁদা দাবি করায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতা আলমগীর হোসেনকে (খাজা আলমগীর) গণধোলাই দেওয়া হয়েছে। সোমবার রাতে উপজেলার বানিয়াচং মোড়ে এ ঘটনা ঘটে। আহত অবস্থায় খাজা আলমগীর কুমিল্লার একটি হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

আলমগীর হোসেন বানিয়াচং গ্রামের মৃত আব্দুল মান্নান মিয়ার ছেলে এবং শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-দফতর সম্পাদক।

স্থানীয়রা জানায়, সোমবার রাতে বানিয়াচং মোড়ে দোকানদার বাইজিদ মোল্লা কাছে দুই লাখ, সবুজ মিয়ার কাছে ৫০ হাজার ও কাজী দুলাল মিয়ার কাছে দুই লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেন আলমগীর হোসেন। এ সময় এলাকাবাসী তাকে গণধোলাই দেয়। স্থানীয় কাজী দুলাল মিয়া, কাজী আবদুর রহমান, কাজী নাফিছ ও খোকন মিয়াসহ অনেকেই জানায়, আলমগীরের অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিল। ওই দিন রাতে চাঁদা দাবিকালে এলাকাবাসী তাকে গণধোলাই দেয়। তার বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতিও চলছে।

তবে আলমগীর হোসেনের ছেলে হাসান দাবি করেন, তার বাবাকে শ্যামগ্রামের (আলগা বাড়ির) এরশাদ মিয়ার নেতৃত্বে ৫/৭ জন মিলে বানিয়াচং মোড়ে একা পেয়ে ছুরিকাঘাত করে ও লোহার রড দিয়ে পেটায়।

নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ভারপ্রাপ্ত) রুহুল আমীন বলেন, ‘ঘটনাটি শুনেছি। তবে এখানো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’


এখানে শেয়ার বোতাম