শুক্রবার, ডিসেম্বর ৪

গ্যাজপ্রম নয়, বাপেক্সকে দিয়ে গ্যাস উত্তোলনের দাবিতে বরিশালে বিক্ষোভ

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 736
    Shares

বরিশাল প্রতিনিধি:: বিদেশী কোম্পানি গ্যাজপ্রম নয়, বাপেক্সকে দিয়ে ভোলার গ্যাস উত্তোলনের দাবিতে বরিশালে বিক্ষোভ ও সমাবেশ করেছে বাসদ।

ভোলার গ্যাস বিদেশী কোম্পানি গ্যাজপ্রমকে ইজারা দেয়া চলবে না, দেশীয় মালিকানা নিশ্চিত করে ভোলার গ্যাস দেশীয় কোম্পানি দিয়ে উত্তোলন কর এবং বরিশাল বিভাগে গ্যাসভিত্তিক কারখানা নির্মাণ করে কর্মসংস্থান নিশ্চিত করার দাবিতে আজ সকাল ১১.৩০টায় অশ্বিনী কুমার হলের সামনে দুর্যোগপূর্ন আবহাওয়ার মধ্যেও এই মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছে বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ বরিশাল জেলা শাখা।

বাসদ আহবায়ক ইমরান হাবিব রুমনের সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব ডা. মনীষা চক্রবর্ত্তীর সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাসদের জেলা সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন দিদার, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের শহীদুল, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের মহানগরের সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, সৈয়দ মাহিন, কৈশিক বেপারী।

নেতৃবৃন্দ বলেন, ২০১৭ সালে ভোলার এই দ্বিতীয় গ্যাসক্ষেত্রটি আবিস্কার করে বাংলাদেশের বাপক্সে। তারা এই গ্যাস অনুসন্ধান ও উত্তোলনে সক্ষম হলেও আমরা অবার বিষ্ময়ে লক্ষ্য করছি যে এই গ্যাস উত্তোলনে বিদেশি কোম্পানি গ্যাজপ্রমের সাথে চুক্তির নীল নকসা করা হচ্ছে। বিদেশী কোম্পানিকে দিয়ে এই গ্যাস উত্তোলনে খরচ হবে প্রায় দ্বিগুণ। বিদেশী কোম্পানীর সাথে চুক্তি স্পষ্টভাবে দেশের সম্পদ লুটপাটের এক ঘৃন্য পাঁয়তারা এবং জাতীয়ভাবে আত্মনির্ভরশীল হওয়ার পথে বড় বাধা।

নেতৃবৃন্দ বলেন, গ্যাস উত্তোলনের কাজ গ্যাস আবিস্কারের তুলনায় সহজ এবং বাপেক্স এই কাজটি দীর্ঘদিন থেকে দক্ষতার সাথে করে যাচ্ছে। যেখানে বাপেক্স একটি গ্যাসকুপ খননে সর্বোচ্চ ৮০ কোটি টাকা খরচ করে সেখানে গ্রাজপ্রমের সাথে একই কাজ ১৮০ কোটি টাকায় চুক্তি করা হচ্ছে। যেখানে বাপেক্স প্রতিবছর ৩/৪টি কুপ খনেনর ক্ষমতা রাখে সেখানে কোনভাবেই বিদেশী কোম্পনীর সাথে এই লুটপাট আর দাসত্বে চুক্তি জনগণ মেনে নেবে না।

তাই অবিলম্বে বিদেশি কোম্পানী গ্যাজপ্রমের সাথে কোন চুক্তি বাতিল করে দেশিয় কোম্পানী বাপেক্স-প্রেট্রো বাংলার সাহায্যে ভোলার গ্যাস অনুসন্ধান-উত্তোলন করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, ভোলার গ্যাস বিদেশী কোম্পানি গ্যাজপ্রমকে ইজারা দেয়া বাতিল, দেশীয় মালিকানা নিশ্চিত করে ভোলার গ্যাস দেশীয় কোম্পানি দিয়ে উত্তোলন এবং বরিশাল বিভাগে গ্যাসভিত্তিক কারখানা নির্মাণের দাবি আদায়ে বরিশালে বিভাগীয় সমাবেশ, লংমার্চ এবং প্রয়োজনে হরতালের মতো কঠোর কর্মসূচি দিয়ে সরকারকে বাধ্য করা হবে।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 736
    Shares