রবিবার, নভেম্বর ২৯

গণতান্ত্রিক চর্চার অংশ হিসেবে উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপি

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: দল মনোনয়ন দিলে দলের আস্থার প্রতিদান দিতে শতভাগ প্রস্তুত বলে আশা মনোনয়নপ্রত্যাশীদের। গণতান্ত্রিক চর্চা অব্যাহত রাখতেই ঢাকার দুটিসহ ৫টি শূন্য আসনে উপনির্বাচনে অংশ নিচ্ছে বিএনপি। দলের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা।

তারা বলছেন, শুধু অংশ নেয়ার জন্যই এই উপনির্বাচনে যাচ্ছেনা বিএনপি। আছে বিজয়ী হওয়ার সংকল্প। দল মনোনয়ন দিলে দলের আস্থার প্রতিদান দিতে শতভাগ প্রস্তুত বলে জানান মনোনয়নপ্রত্যাশীরা।

করোনা মহামারির কারণে যশোর ৬ ও বগুড়া ১ আসনের উপনির্বাচনে অংশ না নিলেও ঢাকা ৫, ঢাকা ১৮, সিরাজগঞ্জ ১, পাবনা ৪ ও নওগাঁ ৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি।

করোনার সময়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত থাকায় বেশ কিছুদিন ধরেই ভার্চুয়াল আলোচনা সভাতেই সীমিত রয়েছে রাজনৈতিক কর্মসূচি। তবে, রাজধানীর দুটিসহ ৫টি শূন্য আসনের উপনির্বাচনকে ঘিরে চাঙ্গা হচ্ছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

ঢাকা ১৮ আসনে বিএনপির মনোনয়ন দৌড়ে মাঠে আছেন একাধিক প্রার্থী।

ঢাকা ১৮ আসনের বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী এম কফিল উদ্দিন আহমেদ বলেন, এটি বিএনপির আসন। এখানে বিএনপি নির্বাচিন করলে অবশ্যই জনগণ আমাদেরকেই ভোট দিবে। আমাকে মনোনয়ন দেয়া হলে আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

একই আসনে বিএনপির আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমরা আমাদের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী যুদ্ধে বিজয়ী হবো। বিজয়ী হয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে এই আসনটি উপহার দিব।

ঢাকা ৫ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রার্থী নবীউল্লাহ নবী জানান, মনোনয়ন পেলে দলের আস্থার প্রতিদান দিতে চান তিনি। তিনি বলেন, শুধু দল না, আমাকে সবাই ভালোবাসে। যদি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়, তাহলে এই এলাকার জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবে।

তফসিল অনুযায়ী ২৬শে সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে পাবনা ৪ আসনের উপনির্বাচন। এই আসনে ধানের শীষের টিকিট পেয়েছেন হাবিবুর রহমান হাবিব। তিনি বলেন, জনগণকে ভোটটা দেয়ার সুযোগ দিতে হবে। তারা যদি ভোট দেয়ার সুযোগ পায় তাহলেই আমার জয়ী হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

এছাড়া নওগাঁ ৬ ও সিরাজগঞ্জ ১ আসনেও মাঠে আছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা।

নওগাঁ ৬ আসনের মনোনায়নপ্রত্যাশী ইছাহাক আলী বলেন, দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয়। তাহলে আমিই একমাত্র ব্যক্তি যে আওয়ামী লীগের হাত থেকে এই আসন বিএনপিকে উপহার দিতে পারবো।

করোনা মহামারির কারণে যশোর ৬ ও বগুড়া ১ আসনের উপনির্বাচনে অংশ না নিলেও ঢাকা ৫, ঢাকা ১৮, সিরাজগঞ্জ ১, পাবনা ৪ ও নওগাঁ ৬ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেবে বিএনপি।

করোনার সময়ে সাংগঠনিক কার্যক্রম স্থগিত থাকায় বেশ কিছুদিন ধরেই ভার্চুয়াল আলোচনা সভাতেই সীমিত রয়েছে রাজনৈতিক কর্মসূচি। তবে, রাজধানীর দুটিসহ ৫টি শূন্য আসনের উপনির্বাচনকে ঘিরে চাঙ্গা হচ্ছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

ঢাকা ১৮ আসনে বিএনপির মনোনয়ন দৌড়ে মাঠে আছেন একাধিক প্রার্থী।

ঢাকা ১৮ আসনের বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী এম কফিল উদ্দিন আহমেদ বলেন, এটি বিএনপির আসন। এখানে বিএনপি নির্বাচিন করলে অবশ্যই জনগণ আমাদেরকেই ভোট দিবে। আমাকে মনোনয়ন দেয়া হলে আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

একই আসনে বিএনপির আরেক মনোনয়ন প্রত্যাশী এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমরা আমাদের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নির্বাচনী যুদ্ধে বিজয়ী হবো। বিজয়ী হয়ে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে এই আসনটি উপহার দিব।

ঢাকা ৫ আসনে বিএনপির মনোনয়ন প্রার্থী নবীউল্লাহ নবী জানান, মনোনয়ন পেলে দলের আস্থার প্রতিদান দিতে চান তিনি। তিনি বলেন, শুধু দল না, আমাকে সবাই ভালোবাসে। যদি নির্বাচন সুষ্ঠু হয়, তাহলে এই এলাকার জনগণ আমাকে বিপুল ভোটে নির্বাচিত করবে।

তফসিল অনুযায়ী ২৬শে সেপ্টেম্বর অনুষ্ঠিত হবে পাবনা ৪ আসনের উপনির্বাচন। এই আসনে ধানের শীষের টিকিট পেয়েছেন হাবিবুর রহমান হাবিব। তিনি বলেন, জনগণকে ভোটটা দেয়ার সুযোগ দিতে হবে। তারা যদি ভোট দেয়ার সুযোগ পায় তাহলেই আমার জয়ী হওয়ার সুযোগ রয়েছে।

এছাড়া নওগাঁ ৬ ও সিরাজগঞ্জ ১ আসনেও মাঠে আছেন মনোনয়নপ্রত্যাশীরা।

নওগাঁ ৬ আসনের মনোনায়নপ্রত্যাশী ইছাহাক আলী বলেন, দল যদি আমাকে মনোনয়ন দেয়। তাহলে আমিই একমাত্র ব্যক্তি যে আওয়ামী লীগের হাত থেকে এই আসন বিএনপিকে উপহার দিতে পারবো।

 


এখানে শেয়ার বোতাম