বুধবার, মে ১২
শীর্ষ সংবাদ

ক্যাসিনোর টাকার ভাগ যারা পেয়েছে তাদেরকে ছাড় দেয়া হবে না: ওবায়দুল কাদের

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের জানিয়েছেন দুর্নীতি ও ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান আওয়ামী লীগ নিজেদের ঘর থেকে শুরু করেছে ।

তিনি বলেন, এর সাথে যারা জড়িত, তাদের কাউকে ছাড় না দেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। ক্যাসিনোর টাকার ভাগ যারা পেয়েছে, তারা আওয়ামী লীগ কিংবা অন্য দলের অথবা পুলিশ প্রশাসনের হলেও ছাড় দেয়া হবে না।

শুক্রবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকালে সিলেটে সড়ক জোন অফিস ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকালে উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি।

গত এক সপ্তাহ ধরে ঢাকা ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন ক্লাবে জুয়া-ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী। ক্ষমতাসীন দলের নেতারা এই অভিযানকে ‘শুদ্ধি অভিযান’ হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন।

এর মধ্যেই ‘ক্যাসিনো’ চালানোর দায়ে যুবলীগের নেতা খালেদ মাহমুদ ভুঁইয়া, অবৈধ অর্থ উপার্জনের দায়ে জি কে শামীমসহ ক্ষমতাসীন দলের কয়েকজন নেতাকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব। তার আগে চাঁদাবাজির অভিযোগে প্রধানমন্ত্রীর তোপের মুখে থাকা ছাত্রলীগের সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে তাদের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়।

শুক্রবার সিলেটে আওয়ামী লীগের মেয়াদোত্তীর্ন কমিটি নিয়েও কথা বলেন দলটির সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের মেয়াদ উত্তীর্ণ কমিটি আগামী ১০ ডিসেম্বরের মধ্যে গঠন করা হবে বলেও জানান ওবায়দুল কাদের।

আগামী ডিসেম্বরেই আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। তবে এখন পর্যন্ত মাত্র একটি জেলায় কমিটি করতে পেরেছে বর্তমান কার্যনির্বাহী পরিষদ। ফলে বেশিরভাগ জেলায় মেয়াদোত্তীর্ন হয়ে পড়েছে কমিটি। সিলেট জেলা ও মহানগর কমিটিও মেয়াদ পেরিয়েছে অনেক আগে।

মহাসড়কে তিন চাকার যান চলাচল প্রসঙ্গে সড়কমন্ত্রী বলেন, মহাসড়কে করিমন, নসিমনসহ তিন চাকার যান চলাচল বন্ধে কাজ চলছে। এ যানের আমদানির বিষয়টা দেখে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। আমদানি বন্ধ করতে একাধিক চিঠি দিয়েছি। এছাড়া নাম্বারবিহীন সিএনজি অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করতে ব্যবস্থা নিতে আগে থেকেই প্রশাসনকে বলে রাখা আছে।

সিলেট-ঢাকা চার লেন সড়কের ব্যাপারে তিনি বলেন, ফান্ডিংয়ের অভাবে আগে থেকে কাজ শুরু করা যায় নি। চার লেনের ব্যাপারে শুরু থেকেই তিনি আন্তরিক বলে জানান।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিছবাহ উদ্দিন সিরাজ, কেন্দ্রীয় সদস্য বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরীসহ সড়ক বিভাগের কর্মকর্তারা।


এখানে শেয়ার বোতাম