শনিবার, নভেম্বর ২৮

কাশ্মীরের পরিস্থিতি দেখতে ভারতে ইইউ প্রতিনিধি দল

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: জম্মু ও কাশ্মীরের পরিস্থিতি পর্যালোচনায় ভারতে এসেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের (ইইউ) প্রতিনিধি দল।

মঙ্গলবার সকালে জম্মু ও কাশ্মীরের উদ্দেশে রওনা হয়েছেন তারা। খবর এনডিটিভির।

ওই রাজ্য থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিল করার পর থেকে দু’মাসেরও বেশি সময় ধরে জারি থাকা নিষেধাজ্ঞা নিয়ে নানা সমালোচনা চলছে। এর মধ্যেই উপত্যকারে পরিস্থিত খতিয়ে দেখতে ভারতেেএসেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধি দলটি।

গত ৫ আগস্ট জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা রদ করে সে রাজ্যের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করে কেন্দ্রীয় সরকার। রাজ্যটিকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলেও বিভক্ত করার ঘোষণা করা হয়।

সেই সময় থেকেই কড়া বিধিনিষেধ জারি রয়েছে উপত্যকাজুড়ে। সেই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতেই প্রথম আন্তর্জাতির দল হিসেবে ভারতে এসেছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নের ২৭ সদস্য।

প্রতিনিধি দলের সদস্যরা জম্মু ও কাশ্মীরের ব্যবসায়ী, হাউজবোটের মালিক এবং রাজ্য সরকারের আধিকারিকদের সঙ্গে দেখা করবেন বলে জানা গেছে।

প্রতিনিধি দলের অন্যতম নাথন গিল বলেছেন, বিদেশি প্রতিনিধি হিসেবে কাশ্মীরে গিয়ে পরিস্থিতি নিজেদের চোখে খতিয়ে দেখার জন্য এটা আমাদের পক্ষে একটা ভালো সুযোগ।

সোমবার দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভালের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছে প্রতিনিধি দলটি।

নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তাদের বৈঠকের পরে, প্রধানমন্ত্রী কার্যালয় থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী প্রতিনিধি দলকে ভারতে স্বাগত জানিয়েছেন, পাশাপাশি জম্মু ও কাশ্মীরসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে তাদের ফলপ্রসূ সফর হওয়ার প্রসঙ্গে আশা ব্যক্ত করেছেন।

পাকিস্তানের নাম না দিয়েই প্রধানমন্ত্রী মোদি ইইউ সদস্যদের বলেন, যারা সন্ত্রাসবাদী কর্মকাণ্ডকে সমর্থন করে বা তাতে মদদ জোগায় এবং সন্ত্রাসবাদকে রাষ্ট্রীয় নীতি হিসেবে ব্যবহার করে তাদের বিরুদ্ধে জরুরি ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।

যদিও রাহুল গান্ধীর মতো বিরোধী নেতারা এই সফর নিয়ে অনেক প্রশ্ন তুলেছেন। তিনি টুইটারে বলেছেন, ইউরোপের প্রতিনিধিরা জম্মু ও কাশ্মীর সফরে যেতে চাইলে তাদের স্বাগত জানানো হচ্ছে, অথচ দেশের সাংসদদের ক্ষেত্রে এ বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে এবং প্রবেশ নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। এটা খুব ভুল কাজ হচ্ছে।

কংগ্রেসের আরেক সংসদ সদস্য শশী থারুর কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তকে ‘গণতন্ত্রের অপমান’ বলে অভিহিত করেছেন।


এখানে শেয়ার বোতাম