সোমবার, মার্চ ৮
শীর্ষ সংবাদ

কারাগার থেকে বের হওয়ার পরদিনই খুন হলেন রফিক

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক :: কিশোরগঞ্জের ভৈরবে রফিকুল ইসলাম রফিক (৪০) নামে এক ব্যক্তি দুর্বৃত্তদের হাতে খুন হয়েছেন। মঙ্গলবার বেলা ৩টার দিকে উপজেলার শিবপুর ইউনিয়নের টানকৃষ্ণনগরের শেষ সীমানার একটি ডোবা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহত রফিক ভৈরব উপজেলার মধ্যেরচর এলাকার মৃত কালাগাজী মেম্বারের ছেলে।

পুলিশ জানায়, উপজেলার কুখ্যাত গরু চোর চক্র রফিক বাহিনীর প্রধান তিনি। সোমবার কিশোরগঞ্জ জেলা কারাগার থেকে জামিনে বের হয়ে বাড়িতে আসেন। পরে মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে বাড়ি থেকে মোটরসাইকেল নিয়ে বের হন। পরে এলাকাবাসী দুপুর দেড়টার দিকে রফিকের লাশ টানকৃষ্ণনগর এলাকার শেষ সীমানার ডোবায় পড়ে থাকতে দেখে ভৈরব থানা পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ বেলা ৩টার দিকে লাশ উদ্ধার করে ভৈরব থানায় নিয়ে আসে।

পুলিশ আরও জানায়, দুর্বৃত্তরা তাকে শরীরের বিভিন্ন অংশে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাথারী কুপিয়ে হত্যা করেছে। রফিকের বাম হাতের কব্জি ও মাথার খুলি থেকে মস্তক বিচ্ছিন্ন করে ফেলা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, মৃত্যু নিশ্চিত করার পর দুর্বৃত্তরা রাস্তার পাশের ডোবায় লাশ ফেলে পালিয়ে যায়।

রফিকের ভাই ফেরদৌস ও ভাতিজা অপু দাবি করেন, ৩ বছর ধরে জমি নিয়ে মধ্যেরচর এলাকার গোলাপ মিয়ার সঙ্গে তাদের বিরোধ চলছিল। সালিশ দরবার হলেও এর কোন মীমাংসা হয়নি। জমি সংক্রান্ত জের ধরেই কৃষ্ণনগর এলাকার লাল মিয়া, তার ছেলে তানভীর ও মধ্যেরচর এলাকার লতিফ হাজী, তার ছেলে আল আমিন, গোলাপ মিয়া, ফারুক মিয়া, রফিকসহ তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা মিলে পরিকল্পিতভাবে এই হত্যাকাণ্ড ঘটিয়েছে।

ভৈরব থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বাহালুল খান বাহার জানান, রফিকের বিরুদ্ধে ভৈরব থানায় গরু চুরি ও ডাকাতির একাধিক মামলা রয়েছে। তিনি ভৈরবে কৃষকদের কাছে ত্রাস হিসেবে পরিচিত। কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে এখনও জানা যায়নি। এ বিষয়ে পরিবারের লোকজন কোন অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রাথমিক সুরতহাল রিপোর্ট তৈরি করে লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে।


এখানে শেয়ার বোতাম