মঙ্গলবার, মে ১১
শীর্ষ সংবাদ

‘করোনা দুর্যোগে চাল আত্মসাৎ ফৌজদারী অপরাধের সামিল’

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 117
    Shares

অধিকার ডেস্ক:: করোনা দুর্যোগে হতদরিদ্রদের চাল আত্মসাৎ ফৌজদারী অপরাধের সামিল বলে মন্তব্য করে বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেছেন , চাল ও ত্রাণ সামগ্রী চুরি, দুর্নীতি ও দলীয়করণের বিরুদ্ধে গণতদারকি কমিটি গঠন করে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে

আজ শনিবার (১১ এপ্রিল) সংবাদ পত্রে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এই মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে তিনি করোনা দুর্যোগে হতদরিদ্র অসহায় নিরন্ন মানুষের জন্যে বরাদ্দকৃত চাল চুরির ঘটনাকে ফৌজদারী অপরাধের সমতুল্য আখ্যায়িত করে চাল আত্মসাত, মজুদ ও কলো বাজারে বিক্রির ঘটনার সঙ্গে যুক্ত সকল অপরাধীদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক বিচারের দাবি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, এসব দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরকারের সতর্কবাণী সত্ত্বেও অধিকাংশ ক্ষেত্রেই সরকার দলীয় বিভিন্ন স্তরের লোকজন ও কথিত জনপ্রতিনিধিরা এসব দুর্নীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়েছেন।

এ কারণে অনেক ক্ষেত্রে এদেরকে গ্রেফতার ও চুরিকৃত চাল উদ্ধার করতে যেয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোমুখি হচ্ছেন। তিনি ক্ষোভের সাথে উল্লেখ করেন চালসহ ত্রাণসামগ্রী বিতরণেও চলছে অনিয়ম ও দলীয়করণ। কোন নজরদারি ও তদারকি না থাকায় বেশীরভাগ বরাদ্দ চলে যাচ্ছে সরকার দলীয়দের কাছে। তিনি এসব চুরি, দুর্নীতি ও দলীয়করণ প্রতিরোধে স্থানীয় পর্যায়ে সকল রাজনৈতিক দল ও এলাকার গণ্যমান্য বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সমন্বয়ে ‘গণতদারকি কমিটি’ গঠনের আহ্বান জানান। একই সাথে ত্রাণসামগ্রী নিয়ে যেকোন দুর্নীতির বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তোলারও আহ্বান জানান।

বিবৃতিতে তিনি উল্লেখ করেন, ব্রাক এর জরিপ অনুযায়ী এই মুহুর্তে ১৪ শতাংশ মানুষের ঘরে কোন খাবার নেই। করোনা সংক্রমনের গত এক মাসেই নতুন করে দারিদ্র সীমার নীচে নেমে গেছে লক্ষ লক্ষ মানুষ। তিনি বলেন, আগামী দেড়/দু’মাসে খাদ্য পরিস্থিতির গুরুতর অবনতি ঘটনার আশঙ্কা তৈরী হয়েছে।

তিনি জরুরী ভিত্তিতে দেশের লক্ষ লক্ষ অভুক্ত পরিবারের কাছে খাদ্য সামগ্রী ও নগদ অর্থ পৌঁছানোর দাবি জানান। তিনি প্রকৃত হতদরিদ্র ও না খাওয়া পরিবারসমূহের কাছে খাদ্যসহ ত্রাণসামগ্রী পৌঁছাতে সশস্ত্র বাহিনীসহ আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে যুক্ত করার আহ্বান জানান।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 117
    Shares