Home মতামত করোনা ও লুটেরা শাসক উভয়ের প্রতিরোধ জরুরী

করোনা ও লুটেরা শাসক উভয়ের প্রতিরোধ জরুরী

নুরুল হুদা নিপু::

চীনকে যখন ধরল- অসুস্থ চীন যখন করোনা আক্রান্ত হয়ে কাতরাচ্ছে তখন বিশ্ববাসীর অধিকাংশই হেসেছে!
একটা অংশ নীরব, দেখে- দেখে নাই!
একটা অংশ ‘গজব’ বলে অভিশাপ দিয়েছে!!!
কেউ কেউ সাপ ব্যাঙ বাদুড় খায় বলেছে ঘৃণা করেছে,
কেউ কেউ চীনের করোনা আমেরিকার জন্য ভালো বলেছে! আর বন্ধুরা পাশে দাঁড়িয়েছে। সকলের সহযোগিতায় অসীম সাহস নিয়ে সাড়ে তিন হাজারের মধ্যে নির্মম মৃত্যুকে ঠেকিয়ে করোনা কে পরাজিত করেছে বিশ্বজয়ী শি জিনপিং।

তখনো ইউরোপ অবহেলা করছে। তারপর ইউরোপই এখন করোনার কেন্দ্রবিন্দু। এখন প্রায় ১৮০টি দেশের প্রায় ১৩০০০ মানুষের হত্যা ও প্রায় তিন লক্ষ মানুষ করোনা আক্রান্ত।

ইতালি চীন থেকে শিক্ষা নিল না, স্পেন চীন থেকে শিক্ষা নিলো না, আর যারা যারা শিক্ষা নিলো তারা মৃত্যুর হার কমাতে পারল- আর ঠিক তখনো চীন কিউবা রাশিয়া ও ইউরোপ-আমেরিকার থেকে করোনা আক্রমণ প্রতিরোধের ব্যর্থতা থেকে শিক্ষা নিলো না বাংলাদেশ। হায়, হামাক এমনই উচ্চ শিক্ষিত জ্ঞানী শাসক! বাংলাদেশ মানুষের জীবন রক্ষা করার শিক্ষা কাজে লাগাবার কত বিশাল সুযোগ হারালো !!!

এমনও দেশ আছে করোনায় একজনো মারা যায় নিই। অথচ চীনের পাশে! কি তাদের জ্ঞান বুদ্ধি যোগ্যতা?

শুরুতে করোনা আমাদের কাছ থেকে ছিল ৯০ দিন দূরে! অনেক দেশ টেস ঘুরে টুরে এলো করোনা! তারপরও এখানকার শাসক করোনা ও মৃত্যুকে প্রতিরোধ করতে পারলো না।

তবে আমরা তো মরবো প্রায় নিশ্চিত। আজ হোক কাল হোক। তবে আনন্দের সংবাদ হল করোনা শাসককেও করেনা ক্ষমা- ক্ষমা করে না! তবে, আমরা কে কে মরবো জানিনা।

আমাদের কারো বাবা-কারো মা, কারো ভাই-বোন, সন্তান, প্রিয়তমা প্রেমিকা কিংবা আমি মারা যেতে পারি। কিন্তু আমরা আমাদের প্রিয় জনের সময়ের মধ্যে বেঁচে থাকব।
আমরা স্বপ্নের প্রজন্মের মাঝে বেঁচে থাকবো

করোনা নিয়েছে কেড়ে হয়তো প্রাণ তবু আমাদের মৃত্যু নেই, আমরা সুন্দরের মাঝে বেঁচে থাকবো, সুরের মাঝে থাকবো, আনন্দের মাঝে থাকবো, আলোর মাঝে উদ্ভাসিত হবো বন্ধুদের চোখে। করোনা হত্যাকাণ্ডই পৃথিবীর মানুষ জানবে আমরা কত বর্বর ফ্যাসিবাদী শাসনে ছিলাম। আমাদের শাসক আমাদের মৃত্যু ঠেকানো চেষ্টা তো দূরের কথা আমাদের জ্বলন্ত ঘরে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়ে ঘরের দরজা লাগিয়ে দিলেন!!!

কিন্তু চীন পেরেছে মৃত্যুকে থামিয়ে দিতে- করোনাকে চিবিয়ে হত্যা করে বোতলবন্দী করতে! লিংক চান? প্রমান চান? চায়না ইতিমধ্যে পাঁচটি দেশে তাদের ডাক্তার নার্স ও করোনার চিকিৎসা সরঞ্জাম নিয়ে অসুস্থ অসহায় মানবতার পাশে দাঁড়িয়েছে। আর আপনি আমি এখন প্রস্তুতি নিচ্ছি ঘরে ঢুকে যাওয়ার, স্বেচ্ছায় গৃহবন্দী মাত্র। এখন যদি করোনায় ইতালির চেয়ে বেশি মানুষ অন্য দেশে মারা যায় তবে কী সেটা ব্যর্থ রাষ্ট্র নয়? উন্নয়নের রোল মডেল ফাঁকা বুলির ফোলা গালে… জনগণ চুমু দিবে পায়ে তাহলে?

আমরা যখন ঘরের দরজা লাগিয়ে মৃত্যুর ভয়ে গৃহবন্দী হচ্ছি, আমেরিকা ইউরোপ জাপান মক্কা কাশী আরব জাহান হিন্দুস্তান পৃথিবী যখন শাটডাউনে লক। আরে বাবারে বাবা বাঁচার (কৃষক) কী সুখ!

ঠিক তখনই কমিউনিস্ট কিউবার একদল নির্ভীক কমরেড করোনাকে পরাজিত করে ইউরোপে। এটা সেই কিউবা কমরেড ফিডেল ক্যাস্ট্রোর নেতৃত্বে মাত্র ২৬ জন নিয়ে বাতিস্তুতা স্বৈরাচারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জিতেছিল। এটা সেই গুয়েভারার কিউবা। যার ভয়ে পৃথিবীর বিশ্ব মোড়ল মার্কিন শাসকেরা কাঁপতো। সেই কিউবার ডাক্তারদের ভয়ে করোনা কাঁপে এখন ইটালিতে।

সমাজতন্ত্র সোভিয়েত রাশিয়া ধ্বংস হয়ে গেলেও শুধু রাশিয়া করোনাকে ভয় করে না এখনো মানবতার পাশে দাঁড়ায়।

আর আমরা কী ঘরের ভিতরে অসহায় মরবো?
কেউ রেগে রোগে, কেউ না খেতে পেয়ে অভুক্ত অসুস্থ, আমরা কি ভাগ্যকে দোষারোপ করব?
আমরা কি অসহায় অদৃষ্টে হাত তুলবো নাকি ক্ষুব্দ বজ্রমুষ্ঠিতে শূন্যে লাফিয়ে ঘুসি মারবো?

নাকি অজানা শঙ্কায় ভয়ে ডরে বাঁচবো? নাকি লুটেরা শাসক ও করোনা কে প্রতিরোধ করব?

লেখকঃ সংগঠক ও রাজনীতিবিদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ

করোনা আক্রান্ত দ্রুত বাড়ছে বাংলাদেশে, ঘরে থাকার বিকল্প নেই

অধিকার ডেস্ক:: দেশে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। কয়েকদিন ধরে আক্রান্তের সংখ্যা জ্যামিতিক হারে বাড়ছে। এ নিয়ে দেশজুড়ে তৈরি হয়েছে উদ্বেগ।...

করোনা আতঙ্কে এগিয়ে আসেনি কেউ, বাবার লাশ কাঁধে নিল চার কন্যা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক:: করোনা ঠেকাতে ভারতজুড়ে চলছে লকডাউন। প্রতি মুহূর্তে বলা হচ্ছে, বাঁচতে হলে একমাত্র অস্ত্র সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখুন। আর সেই সামাজিক...

মৌলভীবাজারে মৃত ব্যক্তির করোনা শনাক্ত, গ্রাম লকডাউ

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি :: মৌলভীবাজারের রাজনগরে জ্বর ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে মারা যাওয়া ব্যক্তির নমুনা পরীক্ষায় করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। মৌলভীবাজারের সিভিল সার্জন এই তথ্যের...

করোনার সময়ে একদিনে ব্যাংকে এলেন আড়াই হাজার গ্রাহক

অধিকার ডেস্ক:: টাঙ্গাইলের ব্যাংকগুলোতেও ব্যাপক জনসমাগম। সামাজিক দূরত্বের ধার ধারছে না তারা। রোববার সকাল থেকে এমন চিত্র দেখা গেছে সোনালী ব্যাংক টাঙ্গাইল...