শুক্রবার, নভেম্বর ২৭

এনআরসির প্রতিবাদে রাস্তায় স্লোগান ধরলেন অধ্যাপক,যোগ দিলেন হাজারো শিক্ষার্থী

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: ভারতে নাগরিকত্ব (সংশোধনী) আইনের প্রতিবাদে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিবাদ মিছিলে নেতৃত্ব দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘মানবতা ও সমাজবিজ্ঞান’ বিভাগের ডিন প্রদীপ বসু। সেই মিছিলের ভিডিও এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল।

ভিডিওতে অধ্যাপক বসু ‘খুঁজে খুঁজে মুসলিম মারার চক্রান্তকে ব্যর্থ করো; ব্যর্থ করো ব্যর্থ করো’; ‘এনআরসিকে জ্বালিয়ে দাও পুড়িয়ে দাও’, ‘সিএএ-কে জ্বালিয়ে দাও পুড়িয়ে দাও’ ও ‘‘ফ্যাসিবাদি শাসনব্যবস্থার শেষ হোক’সহ মোদী সরকারের নীতিবিরোধী নানা ধরণের স্লোগান দিতে থাকেন। তার সঙ্গে স্লোগানে গলা মেলান মিছিলে হাজির হওয়া বিপুল সংখ্যক প্রতিবাদী শিক্ষার্থী। মঙ্গলবার কলেজ স্ট্রিটে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয় চত্বর থেকে শুরু করে চার কিলোমিটার দূরে শ্যামবাজার পর্যন্ত যায় ওই মিছিল।

অধ্যাপক বসু বলেন, মিছিলটি ছিল স্বতঃস্ফূর্ত এবং কোনও ছাত্র ইউনিয়ন রাজনৈতিক পতাকা সহ মিছিলে যোগ দেয়নি। নাগরিকত্ব আইন নিয়ে সেনা প্রধানের বক্তব্যকে ‘রাজনৈতি’ বলে সমালোচনা বিরোধীদের। তিনি বলেন, ‘আমরা দেখেছি জামিয়া মিলিয়া ইসলামিয়ায় কী হয়েছে। মানুষকে ধর্মীয় বৈষম্যের দ্বারা চিহ্নিত করা হয়েছে। আমি প্রতিবাদের তাগিদ অনুভব করছিলাম। তাই যখন ছাত্রছাত্রীরা আমাকে বলল আমি সঙ্গে সঙ্গে ওদের অনুরোধে সাড়া দিই।’

এসএফআইয়ের শুভজিৎ সরকার জানান, তারা প্রদীপ বসুর মতো অধ্যাপক পেয়ে গর্বিত। তিনি বলেন, ‘স্যার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের সঙ্গে মিছিলে যোগ দিতে রাজি হয়ে যান। মিছিলে ছিল হাজারো মানুষ। বেশির ভাগই আমাদের ছাত্র ইউনিয়নের সদস্য নয়। উনি এনআরসি ও সিএএ-র বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকেন। আমরা তার সঙ্গে গলা মেলাতে থাকি। পরিবেশ ছিল উদ্দীপ্ত।’ তবে প্রতিবাদ মিছিলে অধ্যাপকের যোগদান নিয়ে কোনও মন্তব্য করতে চাননি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত, বিভিন্ন রাজ্যে আন্দোলন গড়ে উঠেছে সরকারের নতুন নাগরিকত্ব আইনের বিরুদ্ধে। দিল্লির জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়, আলিগড় মুসলিম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরাও এই আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েছে।


এখানে শেয়ার বোতাম