বৃহস্পতিবার, ডিসেম্বর ৩

ইয়েমেনে হুথিদের লক্ষ্য করে সৌদি জোটের ১১ দফা হামলা

এখানে শেয়ার বোতাম
  • 2
    Shares

আন্তর্জাতিক ডেস্ক::  ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহীদের অবস্থান লক্ষ্য করে ১১ দফা বিমান হামলা চালিয়েছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। রাজধানী সানায় রোববার এসব হামলা চালানো হয়। শিয়া সংগঠনটির পক্ষ থেকে আনাদোলু নিউজ এজেন্সিকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

একটি নিরাপত্তা সূত্রের বরাত দিয়ে হুথি নিয়ন্ত্রিত সাবা নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, সৌদি জোট সানা বিমানবন্দরে পাঁচ দফা হামলা চালিয়েছে। এছাড়া বাকি অভিযানগুলো চালানো হয়েছে সানার উত্তরাঞ্চল এবং কেন্দ্রীয় অঞ্চলে।

তবে এসব হামলায় হতাহতের বিষয়টি এখনও পরিষ্কার নয়। ঠিক কতজন নিহত বা আহত হয়েছে তা এখনও জানা সম্ভব হয়নি। এ বিষয়ে সৌদি জোটের পক্ষ থেকেও কোনো মন্তব্য করা হয়নি।

সাম্প্রতিক সময়ে সৌদির বিভিন্ন স্থানে ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করেই রোববার হুথি বিদ্রোহীদের অবস্থান লক্ষ্য করে হামলা চালিয়েছে সৌদি জোট। গত বৃহস্পতিবার সৌদির রাজধানী রিয়াদে গুরুত্বপূর্ণ কিছু স্থানে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন হামলা চালিয়েছে হুথি বিদ্রোহীরা।

হুথির সামরিক শাখার মুখপাত্র ইয়াহিয়া সারিয়া জানান, তারা রিয়াদে গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা লক্ষ্য করে একটি দুল-ফাক্কর ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ও তিনটি সামাদ-৩ ড্রোন ছুড়েছে। এর আগেও সৌদির বেশ কিছু স্থান লক্ষ্য করে হামলা চালানো হয়েছে।

২০১৪ সালে ইরান সমর্থিত ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুথি রাজধানী সানা-সহ দেশটির অধিকাংশ এলাকা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে নেয়। সেই সময় দেশটির প্রেসিডেন্ট আব্দ রাব্বু মনসুর আল হাদি হুথি বিদ্রোহীদের হামলা থেকে বাঁচতে পালিয়ে সৌদি আরবে আশ্রয় নেন।

পরের বছর অর্থাৎ ২০১৫ সালের মাঝামাঝি সময়ে ইয়েমেনের পলাতক এই প্রেসিডেন্টকে ক্ষমতায় বসানোর লক্ষ্যে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট ইয়েমেনে হুথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে বিমান হামলা শুরু করে। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটের এই হামলা শুরুর পর থেকে এক লাখের বেশি ইয়েমেনির প্রাণহানি ও লাখ লাখ মানুষ গৃহহীন হয়ে পড়েছেন।

জাতিসংঘ বলছে, খাদ্য, বাসস্থান ও নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর মারাত্মক সঙ্কট তৈরি হওয়ায় ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের দ্বারপ্রান্তে পৌঁছেছে ইয়েমেন। একে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মানবিক সংকট বলে উল্লেখ করা হয়েছে।


এখানে শেয়ার বোতাম
  • 2
    Shares