Home মতামত আমার ডাক্তার বড় বোন...!!

আমার ডাক্তার বড় বোন…!!

ইমরান হাবিব রুমন::

আমার বড় বোন। আমার বড় বোন ডাক্তার। আমার দুবছরের বড়। আমাদের ৪ ভাইবোনের মধ্যে পড়াশুনায় সবচেয়ে ভাল ছিল। অনেক গল্পের বই পড়তো। উচ্চমাধ্যমিকে কোন কারণে খুব ভাল নাম্বার না পাওয়ায় স্কোর কম ছিল। ইচ্ছা ছিল মেডিকেলে পড়বে। কম স্কোর থাকার পরও ময়মনসিংহ মেডিকেলে চান্স পেয়ে আমাদের তাক লাগিয়ে দিয়েছিল। প্রচন্ড পরিশ্রম করতে পারতো, এখনও পারে।

মনে আছে তখন ২০০৭ সাল। বোনের বাচ্চাটা ছিল বেশ ছোট। সবে কথা বলে, হাঁটতে শিখেছে। সিডরের সেই ভয়াবহ সময়। সবকিছু ফেলে ছোট্ট বাচ্চাকে নিয়ে আমরা ঐ সময় দিনের পর দিন মানুষের চিকিৎসা সেবা দিতে পুরো বরগুনা চষে বেড়িয়েছি…! খেয়ে না খেয়ে সারাদিন রাত শুধু রোগী আর রোগী। রাতে থাকতাম খেজুরতলায় বাসদের ফেরদৌস ভাইয়ের বাসায়। ক্লান্ত হয়ে রাতে ফেরার পরও দেখতাম ঐ বাসাতে রোগীদের লম্বা লাইন। সকালে ঘুম ভাংতো রোগীদের সাড়াশব্দে। উঠে দেখতাম ডাক্তার বোন আমাদের আগে উঠেই রোগী দেখা শুরু করেছে। কারণ এদের দেখে যেতে হবে দুরের কোন গ্রামে, সেখান থেকে আরও দূরে কোথাও…

যে কোন দুর্যোগে আমাদের মেডিকেল ক্যাম্পগুলোতে এভাবে রুগী দেখা মানুষ সে।

এই দুর্যোগে মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমরা বরিশালে কাজ করছি। ব্যস্ততার জন্য কথাও হয়নি আমাদের। আজ সকালে ফোন করে বললো, প্রতিদিন হাসপাতালে যেতে হচ্ছে তাকে। মেডিকেল অফিসার হিসেবে অনেক ধরনের রোগী দেখতে হচ্ছে প্রতিদিন।
অথচ তার নিজের কোন ধরনের নিরাপত্তা পোষাক নাই। এত ঝুঁকি নিয়েও হাসপাতালে যেতে হচ্ছে…
আচ্ছা একটা পিপিই র দাম কত..? কয়টা আতশবাজির সমান..!!

আমাদের মতো আমজনতার জীবনের মূল্য না হয় শূণ্যই ধরলাম। তারপরও একটা সাধারণ হিসেব করে দেখেন তো, একজন ডাক্তার তৈরি করতে আমাদের দেয়া ট্যাক্সের টাকার কত লক্ষ টাকা খরচ করতে হয় আমাদের। অথচ তাঁদের রক্ষার জন্য ২ হাজার টাকার একটা পিপিই দিতে ব্যর্থ এই রাষ্ট্র।

অন্যদেশেগুলোতে এই সংকটে মানুষের জন্য রেশনিং এর ব্যবস্থা করা হয়েছে। আর আমাদের আমাদের দেশে জিনিসপত্রের দাম বেড়েছে। ঘরের মধ্যে থাকতে বলে রাষ্ট্র নির্বাচন করতে ব্যস্ত। পরিবহন বন্ধ না করে বেকুবের মতো বা ইচ্ছাকৃতভাবে ছুটি ঘোষণা করলেন। রাজনৈতিক ফয়দা হাসিলের জন্য মুক্তি দিলেন।

আর আমার বোনের নিরাপত্তার জন্য একটা পিপিইর ব্যবস্থা করতে পারলেন না। আর কথা বললে সেনাবাহিনীর ভয় দেখালেন।

এটা ঠিক আমাদের কারোর মেরুদণ্ড নাই। থাকলে এমন কথা বলে, এমন কাজ করে, মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলে পার পেতেন না।
আমি রাজনীতির জন্য চাকুরি করি না। চাকুরি করলে বোনকে বলতাম দরকার নাই এত অপমানের পর হাসপাতালে গিয়ে নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে মানুষের সেবা করার। তাঁকে বলতাম অন্যদের মতো ঘরের মধ্যে বসে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিতে “Stay at home”!
যদিও জানি আমার বোন কখনোই সেটা করবে না, আমাদের অসংখ্য বোনেরা, ডাক্তার ভাইয়েরা সেটা করে না।


না! সেনাবাহিনীর ভয়ে বা অর্থের লোভে না। করে না বিবেকের তাড়নায়।
এতটুকু বোঝার সাধ্য কি রাষ্ট্রের নেই…!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

সর্বশেষ

পরিবারে বিদেশফেরত কেউ নেই, তবুও করোনায় মারা গেলেন বৃদ্ধ

অধিকার ডেস্ক:: পরিবারে কেউ বিদেশফেরত নেই। গত এক মাসের মধ্যে বিদেশফেরত কেউ তাদের বাড়িতেও আসেনি। এমনকি আত্মীয়-স্বজনদের কেউও না। এরপরও করোনায় আক্রান্ত...

কোয়ারেন্টিনে বিরক্ত ভক্তদের নিজের ফোন নম্বর দিলেন শারাপোভা

অধিকার ডেস্ক:: কত দিন আর ঘরবন্দী হয়ে থাকতে ভালো লাগে! ঘরে বসে থাকতে থাকতে বিরক্ত হয়ে গেছেন যে ভক্তরা, তাঁদের জন্য এগিয়ে...

চট্টগ্রামে সুপারশপ বন্ধ, ১৪ কর্মী হোম কোয়ারেন্টাইনে

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর ছেলে কর্মরত থাকায় চট্টগ্রাম প্রতিনিধি:: চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর ছেলে কর্মরত থাকা একটি সুপার শপ বন্ধ...

এবার রাজধানীমুখী মানুষ ঠেকাতে পুলিশকে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর নির্দেশ

অধিকার ডেস্ক:: রাজধানীমুখী মানুষের ঢল থামাতে পুলিশকে নির্দেশ দিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। শনিবার রাত ১০টার দিকে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।