রবিবার, মার্চ ৭
শীর্ষ সংবাদ

আবরারের জিনিসপত্র নিয়ে গেল পরিবার

এখানে শেয়ার বোতাম

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক :: ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের মারধরে নিহত হওয়ার ২৪ দিন পর বুয়েটের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদের সিট ফাঁকা করে দিয়েছে তার পরিবার।

বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর রুম থেকে আবরারের ব্যবহার্য সব জিনিসপত্র নিয়ে যাওয়া হয়।

আবরারের জিনিসপত্র নেওয়ার সময় হত্যাকারীদের বিচারকাজ দ্রুত শুরু করার তাগিদ দিয়েছেন তার বাবা বরকতুল্লাহ। তিনি বলেন, ‘মামলা যেভাবে আগাচ্ছে তাতে আমরা খুশি, কিন্তু এভাবেই দ্রুতগতিতে যেন মামলা আগায় এবং এর বিচার প্রক্রিয়াও যেন দ্রুত হয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সেই দাবিই করছি।’

তিনি বলেন, সন্তানকে বড় প্রকৌশলী বানাতে পাঠিয়েছিলাম। কিন্তু পড়াশোনা শেষ হবার আগেই ফিরে গেল সেই সন্তানের লাশ। এখন তার ব্যবহৃত আসবাবপত্রও ফিরিয়ে নিয়ে যাচ্ছি। এমনটি যেন আর কোন পিতা-মাতার ভাগ্যে না ঘটে।’

আকুতি করে নিহত আবরারের ভাই বলেন, ‘এভাবে যেন আর কাওকে স্বজন হারাতে না হয়। এমন দুঃখ যেন আর কারো জীবনে না আসে। এসময় আবরারের কাছে রুমমেটদের কোন দাবি-দাওয়া থাকলে তা জানাতে বলেন তিনি। এরপর তিনি বড় ভাইয়ের হয়ে সবার কাছ থেকে বিদায় নেন।’

আবরারের সহপাঠীরা বলেন, ‘বুয়েটে সবাই সমান। এখানে ক্ষমতার চর্চা বন্ধ করতে হবে। আমরা সবাই মিলে চেষ্টা করবো নতুন যারা আসবে তারা যেন একটা সুস্থ, স্বাভাবিক পরিবেশ পায়।’

এসময় তারা পুনরায় নিরাপদ হলের দাবি জানান।

এদিকে আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ২৪ দিনের মাথায় এসেও তার কক্ষটিতে (১০১১) বিরাজ করছে শুনশান নীরবতা। গত ৬ অক্টোবর বুয়েটের শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে নির্যাতনের শিকার হয়ে মৃত্যুবরণ করেন ইলেক্ট্রিক্যাল এন্ড ইলেক্ট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ। এর প্রতিবাদে বিক্ষোভে ফেটে পড়েন বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। তারা আবরার হত্যার বিচারসহ ১০ দফা দাবি নিয়ে আন্দোলনে নামেন। পরে সকল দাবির বিষয়ে আশ্বাস পেলে আন্দোলন স্থগিত করেন তারা।


এখানে শেয়ার বোতাম