সোমবার, মার্চ ৮
শীর্ষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক আদালতে লড়তে হেগের পথে অং সান সু চি

এখানে শেয়ার বোতাম

আন্তর্জাতিক ডেস্ক :: মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্যে রোহিঙ্গাদের ওপর সেনাবাহিনীর গণহত্যার অভিযোগের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক আদালতে লড়তে দেশটির নেত্রী অং সান সু চি নেদারল্যান্ডের পথে রওনা হয়েছেন।

রোববার মিয়ানমারের রাজধানী নাইপিতোর বিমানবন্দর থেকে তিনি নেদারল্যান্ডের হেগের উদ্দেশে রওনা দেন। খবর রয়টার্সের।

এর আগে শনিবার সু চির প্রতি সমর্থন জানিয়ে শহরটিতে তার কয়েক হাজার সমর্থক সমাবেশ করে । ইয়াঙ্গুনে দেশটির জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তারা তার জন্য প্রার্থনা করে।

হেগের আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে (আইসিজে) মিয়ানমারের গণহত্যা নিয়ে অভিযোগের প্রথম শুনানি হবে ১০ থেকে ১২ ডিসেম্বর। এতে মিয়ানমারের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেবেন সু চি।

বিকেলে সু চির কয়েক ডজন সমর্থকেরও হেগের উদ্দেশে রওনা হওয়ার কথা রয়েছে। আগামী কয়েকদিন শহরটিতে বিক্ষোভ করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের।

রোহিঙ্গাদের ওপর চালানো মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নৃশংসতাকে ‘গণহত্যা’ আখ্যা দিয়ে গত ১১ নভেম্বর জাতিসংঘের সর্বোচ্চ আদালত আইসিজেতে মামলা করে আফ্রিকার দেশ গাম্বিয়া।

মুসলিম রাষ্ট্রগুলোর জোট ওআইসির সমর্থনে গাম্বিয়ার ওই মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, রোহিঙ্গাদের নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণ এবং তাদের আবাসন ধ্বংস করেছে মিয়ানমার।

এই মামলার শুনানিতে অংশ নিতেই হেগে যাচ্ছেন সু চি।

রয়টার্সের প্রতিবেদনে বলা হয়, সু চির কার্যালয় সূত্র জানিয়েছে, ‘জাতীয় স্বার্থ রক্ষায়’ আগামী ১০ ডিসেম্বর গাম্বিয়ার দায়ের করা মামলার প্রথম শুনানিতে অংশ নেবেন তিনি।

জাতিসংঘসহ বিভিন্ন মানবাধিকার সংগঠন রোহিঙ্গা নিধনের ঘটনায় খুঁজে পেয়েছে গণহত্যার আলামত। তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে আসছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী।

সু চি’ও রোহিঙ্গাদের পক্ষে ইতিবাচক ভূমিকা নিতে ব্যর্থ হন। বরং বরাবরই গণহত্যাকে আড়াল করার চেষ্টা করেছেন তিনি। রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশ থেকে ফিরিয়ে নিতেও কোনো উদ্যোগ নেননি সু চি। দেশটির সেনাবাহিনীর মতো মিয়ানমার নেত্রী সু চি’ও ‘রোহিঙ্গা’ শব্দটি ব্যবহার করেন না।


এখানে শেয়ার বোতাম