বুধবার, জানুয়ারি ২৭

আগামী বাজেটে বরাদ্দের শীর্ষ পাঁচে নেই স্বাস্থ্যখাত

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: আগামী অর্থবছরের বাজেটে, বরাদ্দের দিক দিয়ে সেরা পাঁচে জায়গা হয়নি স্বাস্থ্যখাতের। অষ্টম সর্বোচ্চ বরাদ্দ পেয়েছে এই খাত। বরাদ্দের অঙ্কে সবচেয়ে এগিয়ে আছে জনপ্রশাসন। তারপর শিক্ষা এবং তৃতীয় অবস্থানে আছে পরিবহণ। ১৩ খাতের মধ্যে ১০ খাতের বরাদ্দ বেড়েছে। কমেছে তিনটি খাতে।

আগামী অর্থবছরের জন্য বৃহস্পতিবার ৫ লাখ ৬৮ হাজার টাকার বাজেট উত্থাপন করবেন অর্থমন্ত্রী। এই টাকা ভাগ করে দেয়া হয়েছে ১৩টি খাতের মধ্যে। তিনভাগের প্রায় একভাগই চলে যাচ্ছে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতনভাতা, পরিচালন ও ব্যবস্থাপনায়।

করোনা সংকট মোকাবিলায়, সরকারি খরচ কমানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন অনেকেই। কিন্তু উল্টো পথে হেঁটেছেন অর্থমন্ত্রী। চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের চেয়েও জনপ্রশাসনে ৪০ হাজার কোট টাকা বেশি টাকা দিয়েছেন তিনি।

মোট ব্যয়ের ১৫ ভাগ জুটেছে শিক্ষা ও প্রযুক্তিখাতে। এই অর্থবছরে খরচ হয়েছে ৭৭ হাজার ৩৯ কোটি টাকা। আগামী বছর আরও ৮ হাজার কোটি টাকা বাড়তি ব্যয় করতে চায় সরকার। বরাদ্দ দেয়া হয়েছে ৮৫৭৬০ কোটি।

পদ্মাসেতু, মেট্রোরেলের মতো মেগা প্রকল্পের সুযোগ নিয়ে, করোনাকালীন বাজেটেও তৃতীয় অবস্থান ধরে রেখেছে পরিবহণ খাত। এ অর্থবছরের সংশোধিত বাজেটের চেয়ে ৬ হাজার কোটি টাকা বেশি বরাদ্দ দিয়েছেন অর্থমন্ত্রী।

বরাদ্দের সর্বোচ্চ পাঁচে জায়গা হয়নি, স্বাস্থ্য খাতের। যদিও টাকার অঙ্কে সাড়ে ৫ হাজার কোটি টাকা বাড়তি দেয়ার পরিকল্পনা করছে অর্থমন্ত্রণালয়। শতাংশের হিসেবে বাজেটের সোয়া পাঁচ শতাংশ অর্থ পাচ্ছে স্বাস্থ্যখাত।

৪ দশমকি সাত এক শতাংশ বরাদ্দ নিয়ে কৃষি আছে সপ্তম অবস্থানে। সংশোধিত বাজেটের তুলনায় বরাদ্দ বেড়েছে মাত্র ২ হাজার কোটি টাকা। আর বিদ্যুৎ আছে ১০ম স্থানে। টাকা বেড়েছে মাত্র ৬০০ কোটি।

অন্যদিকে বরাদ্দ কমেছে স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন, গৃহায়ন এবং শিল্প খাতে। এর মধ্যে সবচেয়ে কম বরাদ্দ পাচ্ছে শিল্প ও অর্থনৈতিক সার্ভিস। ৩১৪০ কোটি টাকা।


এখানে শেয়ার বোতাম