শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৭
শীর্ষ সংবাদ

অপরাজিতা

এখানে শেয়ার বোতাম

শ্বেতা চক্রবর্তী ::

দশ দেবতা এগিয়ে এলেন..
আয়ুধ নয়,তারা এক এক হাতে এক এক জীবন দিলেন মেয়েটিকে..
কন্দর্প-দেবতা দিলেন প্রেমগুহাটির অন্ধকার..
আশিস-দেবতা দিলেন সবসময় কিশোরী থাকার স্বর্ণজবা..
ব্যথা-দেবতা তার হাতে তুলে দিলেন রতি-শিখর আবেগ..
রাগ-দেবতা এগিয়ে দিলেন বাসমতি আলো..
নিঝর-দেবতা তুলে দিলেন ঝর্ণা-সোহাগীর গান..
নাভি-দেবতা দিলেন রাসমণি গভীর..
ওষ্ঠ-দেবতা তুলে দিলেন না সারা ক্ষতবাণ..
হৃদয়-সুন্দর তুলে দিলেন পাল্লাহীন গবাক্ষ..
নিঠুর-দেবতা তুলে দিলেন দুর্দান্ত প্রেমিককে মৃত্যু দেবার মহতী..
মায়া-দেবতা তুলে দিলেন আড়ালের কান্না আর অস্ত্র-বিসর্জন..

কার্যত,হন্তাই হতা..
দলনীই দলিতা প্রেমে,প্রবাহে,পরিবর্তে..

একবিংশের ষোল বিরহে বসে দুর্গা নামের মেয়েটি অসুরের ছবিতে মালা পরালো..
মনে হলো,অসুর যেন ভালোভাবে যুদ্ধই করে নি..
রূপার্ত সে,রূপ পান করতে করতেই স্বেচ্ছায় মৃত্যু নিল..

দুর্গা নামের মেয়েটি কি শেষ পর্যন্ত অপরাজিতা.?
ভাবতে ভাবতে পুজোর শরীরে খেদ..

শারদীয়র আড়াল ভরা বিষণ্ণতা..ক্ষমাহীনতার..!

শ্বেতা চক্রবর্তী :: কবি


এখানে শেয়ার বোতাম