সোমবার, নভেম্বর ৩০

অগ্রীম মেসভাড়া না দেয়ায় আটকে রাখা হলো ৫ ছাত্রীকে

এখানে শেয়ার বোতাম

অধিকার ডেস্ক:: বগুড়ায় দুই মাসের অগ্রীম মেস ভাড়া না দেয়ায় আটকে রাখা পাঁচ কলেজ ছাত্রী পুলিশের হস্তক্ষেপেে বাড়ি ফিরলো। রবিবার সরকারি আযিযুল হক কলেজ পড়ুয়া ঐ পাঁচ ছাত্রী প্রয়োজনীয় বইপত্র ও জামাকাপড় নিতে বাড়ি থেকে শহরের কামারগাড়ি এলাকায় তাদের মেসে এলে এ ঘটনা ঘটে৷

বগুড়া স্টেডিয়াম ফাঁড়ির এসআই জাহাঙ্গীর আলম জানান, শিউলী নিবাস নামের ঐ মেস মালিক ঢাকায় থাকেন। মেসটির কেয়ারটেকার রেণু বেগম ছাত্রীদের কাছে আগামী দুইমাসের ভাড়া দাবি করলে তারা তা দিতে অস্বীকৃতি জানায়। পরে রেনু বেগম মেসটির মূল দরজায় তালা ঝুলিয়ে দেন। পরে ছাত্রীরা তাদের বন্ধুদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা পুলিশে খবর দেয়।

পুলিশ এসে ঐ ছাত্রীদের উদ্ধার করে বাড়ি পাঠায়। তাদের দু’জনের বাড়ি বগুড়ার গাবতলি এবং বাকি তিনজের বাড়ি শিবগঞ্জ উপজেলায়।

এদিকে, শিউলী ছাত্রীনিবাসের কেয়ারটেকার রেণু বেগম জানান, দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার পর সব জিনিসপত্র নিয়ে গেলে তারা আর ফিরে আসবেন না এমন ধারনা থেকেই ঐ ছাত্রীদের কাছে অগ্রীম ভাড়া দাবি করেছিলেন তিনি! তা না দেয়ায় বাড়ির মালিক রমজান আলীর নির্দেশেই তালা ঝুলিয়েছিলেন তিনি।

সরকারি আযিযুল হক কলেজ সংলগ্ন এ এলাকায় পাঁচশতাধিক মেসে অন্তত ১০ হাজার শিক্ষার্থী ভাড়া থাকেন। এমন বেশ কয়েকজন ছাত্রী জানান, করোনা সংকটকালীন সময়েও তারা চলতি মাসের ভাড়া পরিশোধ করার পরে দীর্ঘদিন পর বইখাতা ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে যেতে চাইলে আগামী দুই মাসের মেসভাড়া অগ্রীম দাবী করছেন বেশিরভাগ মেস মালিকই। বর্তমানে অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অনলাইন ক্লাস শুরু করায় তাদের বইপত্র নিতে আসতেও হচ্ছে।

এদিকে স্থানীয় মেস মালিকরা বলেন, বইখাতা ও ব্যাবহৃত জিনিসপত্র নিয়ে গেলে তারা আর ফিরে আসবেন না এমন ধারনা থেকেই পূর্বের নিয়ম অনুযায়ী তাদের কাছে দু’মাসের অগ্রীম ভাড়া চাওয়া হচ্ছে।


এখানে শেয়ার বোতাম